আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
লাইফ স্টাইল

অনলাইনে ভালোবাসা

valentines222_62286ওমেনআই: ভালোবাসাটাকে লাল রুমালে বেঁধে চলুন ফিরে যাই কয়েকযুগ আগে। যেখানে ছিল না কোনো ইন্টারনেট। ইন্টারনেটহীন সেই যুগে ভালোবাসার কথা জানাতে হতো বহু কষ্টে। তাই কখনো ধার দেয়া বইয়ের মধ্যে থেকে টুক করে বেরিয়ে পড়তো প্রেমপত্র, আবার নাম-ঠিকানা-গোত্র-পরিচয় ছাড়াই ডাকযোগে বাড়িতে পৌঁছে যেতো ভালোবাসার ‘নিষিদ্ধ ইস্তেহার’।

আজ যেমন কথায় কথায় ফেসবুকে টেক্সট, হোয়াটস অ্যাপে যোগাযোগ সহজলভ্য, তখন অবশ্য তেমনটা ছিল না। ১৪ ফেব্রুয়ারি কেউ বলত না ‘হ্যাপি ভ্যালেন্টাইন্স ডে’! এখন সবকিছুই যেনো হয়ে গেছে অনলাইন নির্ভর। আর প্রেমটাই বা বাধ থাকবে কেন। ঘরে বসেই চালিয়ে নেয়া যায় ডেটিং! তবে যতো কথাই বলুন না কেন, প্রেমের সেই ফ্লেভারটা নেই।

এদিকে আমাদের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ইতোমধ্যে জানিয়েছেন নতুন প্রজন্ম ফেসবুকে খুবই সক্রিয়। বাংলাদেশে প্রতি দুই মিনিটে একজন করে ফেসবুক ব্যবহারকারী যুক্ত হচ্ছে।

আর একে পুঁজি করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলোও রমরমা ব্যবসা করে নিচ্ছে। ওয়েবরুট গোষ্ঠীর চেয়ার ইন চিফ অরিন্দম বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, এ উপমহাদেশে এখনো দেখেশুনে বিয়ের সংখ্যাই বেশি। কিন্তু ঘটক দিয়ে বা কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জীবনসঙ্গী খুঁজে নেয়ার চিরায়ত পদ্ধতি বদলে গেছে। এর জায়গা নিয়েছে অনলাইন ডেটিং অথবা বিভিন্ন ম্যাট্রিমোনিয়াল ওয়েবসাইট।

এ প্রসঙ্গে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনস্তত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপিকা তিলোত্তমা মুখোপাধ্যায় এ বিষয়ে বলেন, ‘বড় শহরগুলোর সামাজিক বাঁধন অনেকটাই হাল্কা। তার উপর মানুষের হাতে সময় কম। তাই অনলাইনই এখন যোগাযোগের বড় মাধ্যম। যা এ ধরনের প্রণয়ঘটিত সম্পর্কের ক্ষেত্রেও প্রভাব ফেলছে।’

ঢাকা, ১৪ ফেব্রুয়ারি (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close