আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
শিল্প-সংস্কৃতি

জাদুঘরে আনা ফ্রাঙ্ক হিস্ট্রি প্রদর্শনী

ana 24.2.15 wmnওমেনঅাই:জাতীয় জাদুঘরে শুরু হল আনা ফ্রাঙ্ক-এ হিস্ট্রি ফর টুডে শীর্ষক ৫ দিনব্যাপী প্রদর্শনী।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সোমবার এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

বিশেষ অতিথি ছিলেন নেদারল্যান্ডসের ডেপুটি চিফ অব মিশন মার্টিন ভি হুগসগ্রেটেন স্ট্রাটেন।

আনা ফ্রাঙ্ক ডায়েরি ও আলোকচিত্রের সমন্বয়ে আন্তর্জাতিক ভ্রাম্যমাণ প্রদর্শনীটি প্রতিবছর প্রায় ১৫০টি শহরে প্রদর্শন করা হয়। বাংলাদেশে এই প্রদর্শনী এটিই প্রথম।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি জিয়া উদ্দিন তারিক আলী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ‘আনা ফ্রাঙ্ক আমাদের অনেকের কাছেই পরিচিত। এ দেশেও তার ডায়েরির মতো অনেক ডায়েরি রয়েছে, কথাশিল্পী রশীদ হায়দারও শহীদদের ডায়েরি লিখেছেন। আনা ফ্রাঙ্ক প্রতিকূলতার মাঝে জীবন নিয়ে উচ্চাকাঙ্ক্ষা পোষণ করতেন, যা আমাদের প্রজন্মদের চলার পথে পাথেয় হয়ে থাকবে।’

সভাপতির বক্তব্যে আসদুজ্জামান নূর বলেন, ‘১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করে জয়ী হয়েছি। এখন যুদ্ধ করছি অপশক্তির বিরুদ্ধে। আমাদের সাধারণ মানুষকে যারা পুড়িয়ে মারছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা জয়ী হবই।’

আনা ফ্রাংক-এর ডায়েরি, ব্যক্তিগত জীবন ও ঐতিহাসিক দলিল দিয়ে সাজানো হয়েছে এই বিশেষ প্রদর্শনী।

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হবে এই প্রদর্শনী।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর এবং নেদারল্যান্ডসের আনা ফ্রাংক হাউস যৌথভাবে এই বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে।

প্রসঙ্গত, আনা ফ্রাংক দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তার পরিবারের সঙ্গে জার্মান নাৎসি বাহিনীর হাতে বন্দি ছিলেন। হল্যান্ডের মুক্তির দুই মাস আগে ১৯৪৫-এর মার্চ মাসে বের্জেন-বেলসেন বন্দিনিবাসে আনার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর আনার ব্যক্তিগত ডায়েরি উদ্ধার হয়, যা আনা ফ্রাংক ডায়েরি নামে খ্যাত।

ঢাকা, ২৪ ফেব্রুয়ারি (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close