আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
সাক্ষাৎকার / ব্যক্তিত্ব

রোকেয়ার স্বপ্ন গাথাঁ

rokeya wmnওমেনঅাই:ইচ্ছাই মানুষের সবচেয়ে বড় শক্তি। ইচ্ছার সিঁড়ি বেয়ে মানুষ প্রতিনিয়ত উত্তরণের পথ খোঁজে। এই শক্তিকে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে পারলে সাফল্য হাতের মুঠোয় আসবেই। এমনিভাবে ইচ্ছা শক্তিকে কাজে লাগিয়ে নীলফামারীর সাধারণ এক নারী রোকেয়া ইসলাম পেয়েছেন সাফল্যের নাগাল।

রোকেয়া ইসলাম একজন সফল নারী উদ্যোক্তা। স্বামী এবং দু’সন্তান সৈকত ও প্রান্তিকে নিয়ে সুখের সংসার তার। নীলফামারীর শহর ঘেঁষা মার্কাজ মসজিদ পাড়ায় বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের চাকরিজীবী (নকশাকার) লতিফুল ইসলাম রতনের সঙ্গে ঘর বেঁধেছেন ১৯৮৩ সালে। স্বামীর চাকরির কারণে কুড়িগ্রামে ২ বছর, সৈয়দপুরে ১৭ বছর এবং নীলফামারীতে ১৪ বছর ঘুরে বেড়িয়েছেন। দেখেছেন অনেক কিছুই।

সৈয়দপুরে এসে দেখলেন কুটির শিল্পের নানা কর্মকাণ্ড। বেত, বাঁশ, মোমবাতি, আগরবাতি, ব্যাগসহ মুড়ির ঠোঙা তৈরি। অনুপ্রাণিত হলেন রোকেয়া ইসলাম। তাকেও কিছু একটা করতে হবে। কিছু করে স্বামীর পাশে দাঁড়াতে হবে। কী করবেন তিনি? কোনো প্রস্তুতি নেই, নেই কোনো প্রশিক্ষণ। যেটুকু আছে তা হচ্ছে সেলাই-ফোঁড়াই, যা বিয়ের আগে মায়ের কাছে শিখে এসেছেন। শেষমেষ কোনো কিছু চিন্তা না করে নিজের ইচ্ছার ওপর ভর করে চলতে শুরু করলেন তিনি।

বাজার থেকে বিভিন্ন ধরণের কাপড়, সুচ ও রং কিনে এনে নিজ হাতে তৈরি করতে লাগলেন বিছানার চাদর, টেবিল ঢাকার কাপড়, সোফার কুশন, পর্দা ও শালসহ অনেক কিছু। ক্রুস ও কাশ্মিরী আদলে সুক্ষ্ম কাজ আর রুচিবোধের পরিচয় দিয়ে অল্প দিনেই আশেপাশে বেশ পরিচিতি পেলেন। দিনে দিনে বেচাকেনার পরিধি আরও বেড়ে গেলো। এমন ব্যস্ততার সময়ে নিজের কাজের সাহায্যের জন্য কিছু নারীকে নিজের সঙ্গে নিয়ে কাজ শুরু করলেন। আর এভাবেই কেটে গেলো তার দীর্ঘ ৭ বছর।

এখন রোকেয়া ইসলামের অধীনে ২০ জন ‘নকশা কর্মী’ নিয়মিত কাজ করেন। কর্মীদের মজুরি দিয়ে প্রতি মাসে গড়ে ২০ হাজার টাকার মতো মুনাফা হয় এ ক্ষুদ্র শিল্প উদ্যোক্তার। বড় পরিসরে ব্যবসা বাড়নোর প্রবল ইচ্ছা রয়েছে তার। তবে এই মুহূর্তে একটি শো’ রুমসহ কারখানা তৈরি করতে চান। তখন অর্ডার বেশি নেয়ার সঙ্গে নারী শ্রমিকের সংখ্যাও বাড়াবেন। একজন বড় শিল্পপতি হওয়ার স্বপ্ন সারাক্ষণ লালন করে চলেছেন তিনি। আর সে আশাতেই এখনও ইচ্ছার ওপর স্বপ্ন বুনছেন রোকেয়া ইসলাম।

ঢাকা, ০১ মার্চ (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close