আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
জাতীয়স্পট লাইট

২০১৩ সাল: যৌতুকের কারণে ২৪৫ জন নারীকে হত্যা

ওমেন আই:
২০১৩ সালে ৪৭৭৭টি নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। উত্ত্যক্তের শিকার হয়েছেন ৪৯৪ জন নারী। আর এ কারণে আত্মহত্যা করেছেন ২৪ জন। এসিডদগ্ধের শিকার ৫০ জন, অগ্নিদগ্ধের শিকার ৫৩ জন। এর মধ্যে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে ২৪৫ জন নারীকে। ৯৭৫ জন নারী বর্বর নির্যাতন ও ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এর মধ্যে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৮৫ জন। ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৯৪ জনকে ও ধর্ষণের চেষ্টা করা আরো হয়েছে ১৫৩ জনকে। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের দেয়া এ তথ্যে গত বছর বাংলাদেশে নারী নির্যাতনের এক ভয়াবহ চিত্র উঠে এসেছে।

এছাড়া শ্লীলতাহানির শিকার ১৫৪ জন। এসিডদগ্ধের কারণে মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের এবং অগ্নিদগ্ধের কারণে মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের। অপহরণের শিকার হয়েছে মোট ১৩১ জন। মোট ২৭ জন নারী ও শিশু পাচার করা হয়েছে। ১০ জনকে পতিতালয়ে বিক্রি করা হয়েছে। যৌতুকের জন্য নির্যাতনের শিকার হয়েছে ৪৩৯ জন নারী। যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে ২৪৫ জনকে। ফতোয়ার শিকার হয়েছে ২৪ জন। এছাড়া ৮৯ জন গৃহপরিচারিকা নির্যাতনের শিকার হয়েছে। ২৮ জনকে হত্যা করা হয়েছে, আত্মহত্যা করেছে ২৫ জন। ৮২৯ জন নারী ও শিশুকে হত্যা করা হয়েছে এবং বিভিন্ন কারণে ২৩৯ জনকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। এছাড়া ৩৮৬ জন নারী আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে ও ১৭২ জন নারী ও শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বাল্যবিয়ের ঘটনা ঘটেছে ৬৭টি। পুলিশি নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ৩৭ জন।

দেশে ১৪টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত ঘটনার তথ্যের ভিত্তিতে মহিলা পরিষদ এ তথ্য জানায়। তারা জানিয়েছে, দেশে নারীদের ওপর ঘটে যাওয়া নির্যাতনের ঘটনা এই সংখ্যারও দ্বিগুণ। দ্য ইনডিপেনডেন্ট, দ্য ডেইলি স্টার, নিউ এজ, দৈনিক ইত্তেফাক, সংবাদ, প্রথম আলো, দৈনিক জনকণ্ঠ, ভোরের কাগজ, যুগান্তর, মানবজমিন, সমকাল, দৈনিক ইনকিলাব, দৈনিক ডেসটিনি, দৈনিক কালের কণ্ঠ এই ১৪টি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close