আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
উন্নয়নে নারী

বিশ্বসেরা ১০ চিন্তাবিদের তালিকায় বাংলাদেশের মেরিনা

ওমেনআই ডেস্ক : জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সৃষ্ট সমস্যার বাস্তব সমাধানের উপায় নিয়ে কাজ করে ব্রিটিশ সাময়িকী প্রসপেক্টের ৫০ চিন্তাবিদের মধ্যে শীর্ষ ১০-এ স্থান করে নিয়েছেন বাংলাদেশের স্থপতি মেরিনা তাবাসসুম। তিনি ১০ জনের মধ্যে তৃতীয় স্থান পেয়েছেন।

গত ২ সেপ্টেম্বর প্রসপেক্টে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ভোটাভুটির মাধ্যমে ৫০ থেকে শীর্ষ ১০ জনের নির্বাচিত হওয়ার কথা জানানো হয়। এ তালিকায় শীর্ষস্থানে রয়েছেন ভারতের কেরালা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা।

এর আগে গত ১৪ জুলাই মাসে ৫০ জন প্রার্থীকে নির্বাচিত করার পর পুনরায় শীর্ষ ১০ বাছাই পর্বে ২০ হাজার ভোট নেওয়া হয়। মেরিনা তাবাসসুম সম্পর্কে বলা হয়েছে, ‘এক বাস্তব সমস্যা জলবায়ু পরিবর্তনের দিকে তিনি মনোনিবেশ করেছেন। এ জন্য পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পেলে সে উপযোগী ঘরবাড়ি তৈরির নকশা তৈরি করেছেন তিনি। এর আগে ঢাকার দক্ষিণখানে বায়তুর রউফ নামের একটি শৈল্পিক নকশার মসজিদের জন্য ২০১৮ সালে স্থপতি হিসেবে জামিল প্রাইজ পান মেরিনা।

চলতি বছরে বিশ্বসেরা ১০ চিন্তাবিদের এই তালিকার সাতজনই নারী। কিন্তু ১৫ বছর আগে যখন বিশ্বের একশ সেরা চিন্তাবিদের তালিকা তৈরি করা হয়; সেখানে মাত্র ১০ জন নারী ঠাঁই পাওয়ায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল।

তালিকায় শীর্ষে আছেন ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্য কেরালার কমিউনিস্টপন্থী নারী স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সফলতা দেখিয়ে বিশ্বজুড়ে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। করোনা মোকাবিলায় শৈলজা নেতৃত্বাধীন কেরালা মডেলের প্রশংসা বিশ্বজুড়ে সমাদৃত; বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও বিভিন্ন সময়ে ভারতের দক্ষিণের এই রাজ্যের করোনা মোকাবিলা কৌশল অন্যদের মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছে।

তালিকায় আরও আছেন, আফ্রিকান-আমেরিকান দার্শনিক কোরনেল ওয়েস্ট, ব্রাজিলের রাষ্ট্রবিজ্ঞানী ইলোনা জ্যাবো দে কার্ভালহো, ইতিহাসবিদ ওলিভেট ওটেলে, মার্কিন ভূগোলবিদ রুথ উইলসন গিলমোর, বেলজিয়ামের দার্শনিক ফিলিপ্পে ফন প্যারিস, নেদারল্যান্ডসের শিক্ষাবিদ মার্ক পোস্ট ও পোলিশ-ব্রিটিশ জীববিজ্ঞানী ম্যাগডালিনা জারনিকা গোয়েৎস।

প্রসপেক্ট বলছে, স্থপতি মেরিনা তাবাসসুম জলবায়ু পরিবর্তনের মতো এক বাস্তব সমস্যার দিকে মনোনিবেশ করেছেন। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পেলে সেখানে কীভাবে নিরাপদে থাকা যাবে সেই অনুযায়ী ঘরবাড়ির নকশা করেছেন তিনি।

প্রাকৃতিক পরিবেশের সঙ্গে সামঞ্জস্য করে ঘরবাড়ির নকশা করেছেন বাংলাদেশি এই স্থপতি। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পেলে তার নকশাকৃত বাড়ি নিরাপদে সরিয়ে নেয়া যায়।

প্রসপেক্ট আরও বলছে, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় বায়তুর রউফ নামের একটি মসজিদের নকশা করেছেন মেরিনা। সুলতানি আমলের স্থাপত্যের আদলে এই মসজিদটির শৈল্পিক নকশা করে মেরিনা তাবাসসুম ২০১৬ সালে স্থাপত্যের দুনিয়ায় অত্যন্ত সম্মানজনক আগা খান পুরস্কার লাভ করেন।

মসজিদটি ঢাকার দক্ষিণখান থানার ফায়েদাবাদে অবস্থিত। মসজিদটির স্থাপত্যের বিশেষ দিক হলো এর বায়ু চলাচল ব্যবস্থা ও আলোর চমৎকার বিচ্ছুরণ মসজিদের পরিবেশকে অনন্য করে তুলেছে। প্রায় ৭৫৪ বর্গমিটারের মসজিদটিতে পরিচিত মিনার নেই; চারদিকে আটটি পিলারের ওপর এটি নির্মিত।

মা/১০/৯/১১.৪৮

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close