আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
জাতীয়স্লাইড

এমডি তাকসিমের মেয়াদ বাড়ছে তিন বছর

ওমেনআই ডেস্ক : ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খানের মেয়াদ আরো তিন বছর বাড়ানোর জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে। শনিবার বিকালে অনলাইনের অনুষ্ঠিত বিশেষ বোর্ড সভায় এ প্রস্তাবনা করা হয়।

প্রস্তাবনাটি আগামীকাল স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে লিখিত আকারে পাঠানো হবে। সভায় মোট ৯ জন বোর্ড মেম্বার অনলাইনের মধ্যমে যোগ দেন।

২০০৯ সালে ঢাকা ওয়াসার বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদে নিয়োগের পর টানা পাঁচ মেয়াদে ১১ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছেন তাকসিম এ খান। আগামী ১৪ অক্টোবর তার পঞ্চমবারের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তার আগে গত বৃহস্পতিবারের এক নোটিশে আজ বিশেষ বোর্ড সভার আয়োজন করা হয়। সভার একমাত্র আলোচ্য বিষয় ছিল তাকসিম এ খানকে আরো তিন বছরের জন্য নিয়োগ দিতে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো। প্রস্তাবটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে যাবে। সেখান থেকে প্রস্তাবের সারাংশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলে নিয়োগ চূড়ান্ত হবে।

ওয়াসাসূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং ওয়াসার কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত হয় ১৩ সদস্যের ওয়াসা বোর্ড। শিক্ষক, চিকিৎসক, সাংবাদিক, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টসহ ওয়াসার কর্মকর্তারা আছেন এতে। সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে প্রকল্প বোর্ডে পাস হয়। কিন্তু বোর্ডকে পাশ কাটিয়ে বারবারই পুনর্নিয়োগ নিয়েছেন তাকসিম এ খান।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়সূত্রে জানা যায়, তাকসিম এ খান ওয়াসার এমডি হিসেবে প্রথম নিয়োগ পান মহাজোট সরকারের সময় ২০০৯ সালের ১৩ অক্টোবর। এমডি নিয়োগের ক্ষেত্রে যেসব শর্ত ও অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়, সে শর্তের কোনোটিই তাকসিম এ খানের নেই। এর পরেও ওয়াসা বোর্ড তাকসিম এ খানকেই এমডি হিসেবে নিয়োগ দেয়।

ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খানের মেয়াদ আরো তিন বছর বাড়ানোর জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে। শনিবার বিকালে অনলাইনের অনুষ্ঠিত বিশেষ বোর্ড সভায় এ প্রস্তাবনা করা হয়।

প্রস্তাবনাটি আগামীকাল স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে লিখিত আকারে পাঠানো হবে। সভায় মোট ৯ জন বোর্ড মেম্বার অনলাইনের মধ্যমে যোগ দেন।

২০০৯ সালে ঢাকা ওয়াসার বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদে নিয়োগের পর টানা পাঁচ মেয়াদে ১১ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছেন তাকসিম এ খান। আগামী ১৪ অক্টোবর তার পঞ্চমবারের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। তার আগে গত বৃহস্পতিবারের এক নোটিশে আজ বিশেষ বোর্ড সভার আয়োজন করা হয়। সভার একমাত্র আলোচ্য বিষয় ছিল তাকসিম এ খানকে আরো তিন বছরের জন্য নিয়োগ দিতে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো। প্রস্তাবটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে যাবে। সেখান থেকে প্রস্তাবের সারাংশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলে নিয়োগ চূড়ান্ত হবে।

ওয়াসাসূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং ওয়াসার কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত হয় ১৩ সদস্যের ওয়াসা বোর্ড। শিক্ষক, চিকিৎসক, সাংবাদিক, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টসহ ওয়াসার কর্মকর্তারা আছেন এতে। সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে প্রকল্প বোর্ডে পাস হয়। কিন্তু বোর্ডকে পাশ কাটিয়ে বারবারই পুনর্নিয়োগ নিয়েছেন তাকসিম এ খান।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়সূত্রে জানা যায়, তাকসিম এ খান ওয়াসার এমডি হিসেবে প্রথম নিয়োগ পান মহাজোট সরকারের সময় ২০০৯ সালের ১৩ অক্টোবর। এমডি নিয়োগের ক্ষেত্রে যেসব শর্ত ও অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়, সে শর্তের কোনোটিই তাকসিম এ খানের নেই। এর পরেও ওয়াসা বোর্ড তাকসিম এ খানকেই এমডি হিসেবে নিয়োগ দেয়।

২০১২ সালের ১৩ অক্টোবর ওয়াসার এমডি হিসেবে প্রথম দফায় তিন বছরের নিয়োগের মেয়াদ শেষ হলেও পদে বহাল থাকতে তদবির শুরু করেন তাকসিম এ খান। ওয়াসা আইনকে পাশ কাটিয়েই ওয়াসা বোর্ড তিন বছরের পরিবর্তে এক বছরের জন্য তাকে দ্বিতীয়বারের মতো চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়। ২০১৩ সালের ১৩ অক্টোবর এ চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়। ২০১৭ সালের অক্টোবরে পঞ্চমবারের মতো নিয়োগ পেতে সর্বশক্তি প্রয়োগ করেন তাকসিম এ খান। আর এ নিয়োগে ওয়াসা বোর্ডকে পাশ কাটিয়ে মন্ত্রণালয়ে ফাইল পাঠানোর অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে।

ঢাকা শহরে পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশনের উদ্দেশ্যে ১৯৬৩ সালে যাত্রা হয় ঢাকা ওয়াসার। সে সময়ের একটি অধ্যাদেশ অনুযায়ী চলতো সংস্থাটি। পরে ১৯৯৬ সালে ওয়াসা অ্যাক্ট নামে নতুন আইন হয়। এ আইন অনুযায়ী সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হচ্ছেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)। বোর্ড চেয়ারম্যান থাকলেও সভা ডাকা ছাড়া তার একক কোনো ক্ষমতা নেই।

সি/১৯/৯/৯.০০

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close