আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অর্থনীতিস্লাইড

পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহার

ওমেনআই ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ২০২১ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত কার্যকর থাকবে।

অর্থমন্ত্রী জানান, পেঁয়াজ আমদানিতে যে ৫ শতাংশ শুল্ক ছিল, তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে প্রত্যাহার করা হয়েছে। শিগগিরই এ ব্যাপারে নির্দেশনা জারি করবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এনবিআর।

এর আগে গত ৭ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ আমদানির ওপর আরোপিত ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়ে এনবিআরকে চিঠি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। দেশীয় পেঁয়াজ চাষিদের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা এবং আমদানির ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে পেঁয়াজ আমদানিতে চলতি অর্থবছর ৫ শতাংশ শুল্কারোপ করা হয়। বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজের ওপর আরোপিত এ শুল্ক প্রত্যাহার করা হয়েছে।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর ভারত সরকার হঠাৎ করে কোনও কিছু না জানিয়ে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয়। স্থানীয় বাজার স্থিতিশীল রাখতেই রপ্তানি বন্ধের এ সিদ্ধান্ত নেয় বলে জানায় ভারত। তাদের এমন সিদ্ধান্তের পর দেশের তিনটি প্রধান স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আসা বন্ধ হয়ে যায়। এতে করে দেশের স্থল বন্দরগুলোর ওপারে আটকে পড়ে শত শত পেঁয়াজবাহী ট্রাক।

এমতাবস্থায় দেশের পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা শুরু হয়। দফায় দফায় বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম। কারওয়ানবাজারের আড়তগুলো পেঁয়াজের বস্তা ভরা থাকলেও দাম বৃদ্ধির জন্য ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধকে দায়ী করেন ব্যবসায়ীরা। বাজারে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে অভিযান চালায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

এদিকে, দেশের বাজারে পেয়াজের দাম বৃদ্ধি জন্য অসাধু ব্যবসায়ীদের দায়ী করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, বার্ষিক চাহিদার বড় অংশ দেশে উৎপাদিত হলেও বাকিটার বেশিরভাগই ভারত থেকে আমদানি হয়। তাই ভারত রপ্তানি বন্ধ করায় কিছু ব্যবসায়ী দাম বাড়াচ্ছে। পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে আনতে পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ শুল্ক কমানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

প্রায় সপ্তাহখানেক ধরে বিভিন্ন স্থল বন্দরে আটকে থাকা পেঁয়াজ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কায় সীমান্তে অপেক্ষমান পেঁয়াজবাহী ট্রাকগুলোকে অবশেষে ছাড়পত্র দেয় ভারত। শুক্রবার রাতে বন্দর ও কাস্টমসহ বিভিন্ন দপ্তরে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠায় ভারতের সেন্ট্রাল বোর্ড অব ইনডিরেক্ট ট্যাক্সেস এন্ড কাস্টম কর্তৃপক্ষ। এরপর গত শনিবার সকাল থেকে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে প্রবেশ শুরু করে পেঁয়াজবাহী ট্রাক। তবে কয়েকদিনের গরমে আটকে থাকা পেঁয়াজের বেশিরভাগই নষ্ট হয়ে গেছে বলে অভিযোগ জানান আমদানিকারকরা।

সি/২০/৯/৭.৩৭

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close