আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
রাজনীতি

বাংলাদেশে বিতর্কিত নির্বাচনে নিস্তেজ প্রচারণা : বিবিসি

ওমেন আই :
বাংলাদেশে বিতর্কিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী রোববার। এরই মধ্যে এ নির্বাচনে ১৫৩টি আসনে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে না এবং যেসব আসনে একাধিক প্রার্থী রয়েছেন তারাও অধিকাংশই ক্ষমতাসীন জোটের শরিক দল কিংবা স্বতন্ত্র প্রার্থী। সাধারণত সব নির্বাচনের আগেই পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন দিয়ে এবং মিছিল করে প্রচারণা চলতে দেখা যায়। কিন্তু বিরোধী দলবিহীন এ নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণার পরিস্থিতি কি? প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে ব্রিটেনের সংবাদ মাধ্যম বিবিসি।
প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজধানী ঢাকার প্রাণকেন্দ্রে ফকিরাপুল এলাকার একটি প্রেসে ছাপার কাজ চলছে। এ প্রেসের মালিক আবদুল খালেক বলছিলেন বিগত সংসদ নির্বাচনের আগে তিনি কয়েকজন প্রার্থীর পোস্টার ও লিফলেট ছেপেছিলেন। কিন্তু এবার কারো পোস্টার বা লিফলেট ছাপানোর অর্ডার পাননি। ফকিরাপুলের আরো বেশ কিছু প্রেসে ঘুরেও দেখা গেল এক চিত্র। প্রেসের কর্মচারীরা বলছেন, এবারে খুব একটা নির্বাচনী পোস্টার বা লিফলেট ছাপানোর কাজ আসেনি।
তবে কেউ কেউ ছাপানোর কাজ করেছেন এবং তাদেরই একজন মো মুজিবুল হক। তিনি বলছিলেন এবারে তিনি মাত্র একজন প্রার্থীর পোস্টার ছাপানোর কাজ পেয়েছেন এবং সেই প্রার্থীর ৪০-৫০ হাজার পোস্টার তিনি ছেপেছেন।
গত নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে মুজিবুল হক বলছিলেন প্রায় ২০-৩০ জন প্রার্থীর পোস্টার ও লিফলেট তিনি গত সংসদ নির্বাচনে ছেপেছিলেন। কারো ৫০, আবার কারো ১ লাখ পোস্টারও তিনি ছেপেছেন।
কিন্তু এবারে প্রার্থীর সংখ্যা যেমন কম আবার অর্ধেক আসনে ভোটই হচ্ছে না। কেউ কেউ দু-একজনের ছাপানোর কাজ পেলেও অনেকেই ছাপাতে আসেনি। সব দলের অংশগ্রহণে প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচনের ক্ষেত্রে যেভাবে প্রার্থী ও তাদের প্রতিনিধিরা এসে ছাপায় এবারে তা হয়নি।
হক আরো বলছিলেন এমনিতেই অর্ধেক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে আছেন। বাকি আসনগুলোর প্রার্থীরা প্রচার চালালেও তাতে উত্তাপ একেবারেই কম। কিন্তু মাঠ পর্যায়ে প্রচারণার কি পরিস্থিতি?
ঢাকার সূত্রাপুর-কোতোয়ালি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলছে জাতীয় পার্টির প্রার্থী কাজী ফিরোজ রশীদ এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইদুর রহমান শহিদের মধ্যে। এখানকার কুলুটোলা কাঠেরপুল এলাকায় কথা হলো বেশ কয়েকজন ভোটারের সঙ্গে। সজল সরকার নামে এ এলাকার একজন ভোটার বলছিলেন তার এলাকায় নির্বাচনী প্রচার একেবারেই কম। যেসব আসনে নির্বাচন হচ্ছে তার সবখানেই একই অবস্থা।
কথা হয় এ এলাকার বেশ কয়েকজন নারী ভোটারের সঙ্গে। তারা বলছিলেন বাড়ি বাড়ি গিয়ে একবার মাত্র প্রার্থীদের পক্ষে তাদের সমর্থকরা ভোট চেয়ে গেছেন।
ভোটাররা আরো বলছেন, বিকালের পর থেকে প্রার্থীদের সমর্থনে কোথাও কোথাও মিছিল বের হয় ঠিকই তবে তা বিগত যে কোনো নির্বাচনের তুলনায় বেশ কম। আর মাইকিং এর মাধ্যমে এখানকার বিভিন্ন স্থানে প্রার্থীদের সমর্থনে প্রচারণা চলছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close