আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
জাতীয়

ভোটের পরে চার জেলায় সংখ্যালঘুদের বাড়িতে হামলা

ওমেন আই:
নির্বাচনের পরপরই দিনাজপুর, যশোর, সাতক্ষীরা ও ঠাকুরগাঁওয়ে সংখ্যালঘু হিন্দু সমপ্রদায়ের লোকজনের ওপর হামলা শুরু করে জামায়াত-শিবির ক্যাডাররা। গত রবিবার রাত থেকে গতকাল সোমবার পর্যন্ত এসব জেলায় হিন্দুদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। অনেকে প্রাণভয়ে আশ্রয় নিয়েছেন মন্দিরে। কেউ কেউ পালিয়ে রয়েছেন অন্য গ্রামে। প্রশাসনের লোকজন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় গিয়ে হিন্দু লোকজনদের নিজ নিজ বাড়িঘরে ফিরে যেতে বললেও তারা বাড়ি ফিরতে চাচ্ছেন না। এদিকে, নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বাড়িঘর ও দোকান পাটে হামলা করছে দুর্বৃত্তরা। অন্যদিকে, বিভিন্ন জেলায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে বিএনপি- জামায়াতের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে অনেকে। আমাদের অফিস, প্রতিনিধি, স্টাফ রিপোর্টার ও সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর:

দিনাজপুর: রবিবার গভীর রাত থেকে গতকাল ভোর পর্যন্ত দিনাজপুর সদরের কর্নাই গ্রামের প্রিতমপাড়ায় দেড় শতাধিক সংখ্যালঘু পরিবারের ৪শ ঘর-বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, হামলা ও লুটপাট করেছে জামায়াত-শিবির ক্যাডাররা। সংসদ নির্বাচনে ভোট দেয়ার অভিযোগে তাদের বাড়ি-ঘরে হামলা চালায় জামায়াত-শিবির। দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তারা প্রিতমপাড়ায় হিন্দুদের বাড়িঘরে আগুন জ্বালিয়ে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। এসময় আক্রমণে ৫০ জন আহত হয়। লুটপাট করা হয় স্বর্ণালংকার, নগদ অর্থ, মোবাইল, গরু-ছাগল ও আসবাবপত্রসহ অন্যান্য মালামাল। প্রায় ৩ ঘন্টাব্যাপী এই তাণ্ডবের খবর পুলিশ ও প্রশাসনকে জানিয়েও তারা কোন সহযোগিতা পাননি। পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা গতকাল ভোরে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। চরম আতঙ্কে ১০-১৫টি পরিবার গ্রাম ছেড়ে চলে যাওয়ার উদ্যোগ নিলে গতকাল বেলা ১১টায় সদর আসনের এমপি ইকবালুর রহিমের নেতৃত্বে বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের নিরাপত্তার আশ্বাস দেয়। এ ঘটনার পর প্রিতমপাড়ায় অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হয়। জেলা প্রশাসক ও এমপি’র পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মধ্যে নগদ অর্থ, শীতবস্ত্র ও খাদ্য বিতরণ করা হয়।

অভয়নগর (যশোর ) : উপজেলার চেঙ্গুটিয়া এলাকার মালোপাড়ায় রবিবার রাতে দুর্বৃত্তরা হিন্দু সম্প্রদায়ের ৬টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও ৪৬টি বাড়ি এবং প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করেছে। ভয়ে আতংকিত হয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের দু’শতাধিক লোক ভৈরব নদ পার হয়ে উপজেলার দেয়াপাড়া গ্রামে আশ্রয় নিয়েছে। খবর পেয়ে যশোরের পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ঘটনায় তাত্ক্ষণিকভাবে অভয়নগর উপজেলা প্রশাসন আশ্রিতদের মাঝে ২০০টি কম্বল বিতরণ করেন। গতকাল বিকালে যশোর-৪ আসনের এমপি রনজিত কুমার রায়, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান, যশোরের ডিসি মোস্তাফিজুর রহমান, এসপি জয়দেব কুমার ভদ্র, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত মেহনাজ ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

কেশবপুর (যশোর): রবিবার সন্ধ্যা থেকে গতকাল ভোর পর্যন্ত কেশবপুরের গড়ভাঙ্গা বাজারে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের গুদামঘরসহ ২০টি দোকান ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে দুর্বৃত্তরা। পুড়ে যায় পাটের গুদামসহ সারের দোকান। রাতভর গড়ভাঙ্গা এলাকার হিন্দু পল্লীর মানুষ নির্ঘুম রাত যাপন করে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ইসমাত আরা সাদেক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এলাকায় শান্তসভা করেছে।

কলারোয়া (সাতক্ষীরা): নৌকায় ভোট দেয়ায় রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয় জামায়াত-শিবিরের নেতা-কর্মীরা দল বেঁধে ক্ষেত্রপাড়া গ্রামের আওয়ামী লীগ কর্মী নজরুল ইসলামের বাড়ি ভাংচুর করে। একই সময় তারা ওই গ্রামের মনা ভৌমিকের ছেলে বিদ্যা ভৌমিকের ১০ কাঠা জমির উপর পানের বরজে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়।

অন্যদিকে, তালা-কলারোয়া আসনে মহাজোটের নবনির্বাচিত এমপি অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুত্ফুল্লাহর উপর গুলি ও বোমা হামলা চালানো হয়েছে। গতকাল বেলা দেড়টার দিকে তার নির্বাচনী এলাকা কলারোয়া উপজেলার ওফাপুর স্কুল মোড়ে এ হামলা চালানো হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে মো. আলমামুন (১৯) নামে এক শিবির কর্মীকে আটক করা হয়। নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুত্ফুল্লাহ ওয়ার্কার্স পার্টির সাতক্ষীরা জেলার সম্পাদক।

ঠাকুরগাঁও: নির্বাচনের পর ঠাকুরগাঁওয়ের বাসুদেবপুর, গড়েয়া গোপালপুরসহ বেশ কিছু ভোটকেন্দ্রে সহিংসতা এবং আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াত কর্মীদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনায় সংখ্যালঘুরা প্রাণ ভয়ে বিভিন্ন ধর্মশালা ও মন্দিরে আশ্রয় নিয়েছে। জেলার বিভিন্ন কেন্দ্রে নির্বাচনের বিপক্ষের লোকজন হামলা করলে তা প্রতিহত করে সংখ্যালঘুরা। এর জের ধরে বিএনপি-জামায়াত কর্মীরা স্থানীয় দেউনিয়া বাজার ও আকচা পল্টন বাজারে হামলা চালায় এবং দোকানের মালামাল পুড়িয়ে দেয়। এছাড়াও বাড়িঘর জ্বালিয়ে দিয়ে দেশছাড়া করার হুমকি দেয়। তাই জীবন ও সম্ভ্রম হারানোর ভয়ে আশেপাশের ৫টি গ্রামের সংখ্যালঘু সমপ্রদায়ের প্রায় ৩ হাজার নারী-পুরুষ-শিশু বাড়ির প্রয়োজনীয় মালামাল নিয়ে গড়েয়া ইসকন মন্দিরে অবস্থান নেয়। সকালে মধুপুর গ্রামের অতুল চন্দ্র বর্মন (৩০) নামে এক সংখ্যালঘু ব্যক্তির উপর হামলা চালায় বিএনপির সমর্থকরা।

সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম): রবিবার রাত ১২টার সময় চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ মরফলা মৌলভী বাড়ি এলাকায় আওয়ামী লীগ নেতা আবুল হাসানের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। আগুনে আরো সাতটি বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আবুল হাসান নলুয়া ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি অভিযোগ করেন ‘আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ায় এবং নির্বাচনে ভোট দেয়ার কারণে আমার ঘরে আগুন দিয়েছে জামায়াত-শিবির কর্মীরা।’ ক্ষতিগ্রস্ত অন্যরা হলেন সিরাজুল ইসলাম, কুতুব উদ্দিন, নেজাম উদ্দিন, নুরুল হক, আবুল হাশেম, জোনায়েদ ও সোহেল ওসমানী। ক্ষতিগ্রস্তরা খোলা আকাশের নিচে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে। এদিকে, নির্বাচনের আগের দিন উপজেলার ছদাহা মোহাম্মদীয় খায়রিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে জামায়াত-শিবির কর্মীরা হামলা চালিয়ে নির্বাচনী মালামালবাহী গাড়িতে আগুন ও আনসার সদস্যের একটি রাইফেল লুট করে নিয়ে যায়। গতকাল পুলিশ মাদ্রাসার পিছনে পুকুরে তল্লাশি চালিয়ে অক্ষতাবস্থায় রাইফেলটি উদ্ধার করে।

হাকিমপুর (দিনাজপুর): নির্বাচন শেষে রবিবার রাতে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যাপক আশরাফ আলী প্রধানের মুহাড়াপাড়াস্থ বাড়িতে একদল ডাকাত প্রবেশ করে স্বর্ণালংকার ও মটরসাইকেলসহ প্রায় ২ লাখ টাকার মালামাল ডাকাতি করে নিয়ে যায়। একই রাতে উপজেলার মহেশপুর গ্রামের আওয়ামী লীগ কর্মী বাবু ও সাহেবের বাড়িতে দুর্বৃত্তরা অগ্নিসংযোগ করে।

বগুড়া : বগুড়ার শাজাহানপুরের সাজাপুর শাহ পাড়া গ্রামে রবিবার রাতে দুই আওয়ামী লীগ নেতার পায়ের রগ কর্তণ ও রাম দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। আহতরা হলো মাঝিড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মুটুক শাহ ও আব্দুল কাদের জায়দার। আহতদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গোপালপুর (টাঙাইল): আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে নির্বাচন পরবর্তী সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়। সূতী লাঙ্গলজোড়া, মির্জাপুর উত্তরপাড়া ও নয়াপাড়া গ্রামে সংঘর্ষে উভয় দলের ৮ জন আহত হয়। ভূটিয়া ও সাজনপুর গ্রামে সংঘর্ষে ধোপাকান্দী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সম্পাদক মজিবর রহমান, ছাত্রলীগ কর্মী রিপনসহ ৭ জন আহত হয়। তাদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পিরোজপুর অফিস:পিরোজপুর শহরতলীর ব্রাহ্মণকাঠীতে রবিবার গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয় ভাংচুর ও আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। আগুনে কার্যালয়ের আসবাবপত্র, দরজা-জানালা পুড়ে গেছে। এদিকে রবিবার রাতে মঠবাড়িয়া উপজেলার বড়মাছুয়া বাজারের ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মাঈনুল ইসলামের দোকান ঘরসহ ৪টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

গাইবান্ধা: পলাশবাড়ীতে গতকাল দুপুর ১টার দিকে নবাব আলী নামে এক আওয়ামী লীগ সমর্থকের মোটর সাইকেলে আগুন দিয়েছে অবরোধকারীরা। রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের উপজেলা সদরে রাব্বির মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গাংনী (মেহেরপুর) : গতকাল দুপুরে গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এম এ খালেকের বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে নির্বাচনে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী মকবুল হোসেনের লোকজন।

খবর পেয়ে র্যাব-৬ গাংনী ক্যাম্পের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৩৫ শটগানের ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে। এতে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এমএ খালেক জানান, মকবুল হোসেনের সমর্থকরা হামলা চালিয়ে আমার বাড়ির জানালা, দরজা ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। বাড়ির নিচে থাকা নির্বাচনী অফিস ও অফিসের মধ্যে থাকা ৪টি মটরসাইকেল ভাঙচুর করে ও ৫টি বাইসাইকেল নিয়ে গেছে।

রংপুর: মিঠাপুুকুর উপজেলার বড় হযরতপুর ইউনিয়নের বন্ধুর মোড়ে গতকাল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াতের সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি জয়দুল ইসলামের নেতৃত্বে নির্বাচনী বিজয় মিছিল বের করলে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের ক্যাডাররা সেই মিছিলে অতর্কিত হামলা চালালে এই সংঘর্ষ বাধে।

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন জানান, গতকাল দুপুরে ঝিনাইদহ – ২ আসনে আওয়ামী লীগ সমর্থক অথচ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বদলে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছে এমন কয়েকজন বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকরা কালিকাপুরে তাদের উপর হামলা চালায়। এতে কমপক্ষে ৬ জন আহত হয়েছে।

রামগড় (খাগড়াছড়ি) : গতকাল দুপুরে মানিকছড়ি উপজেলাধীন তিনটহরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিজয় মিছিল বের করে। এসময় বিজয় মিছিলটি তিনটহরী গুচ্ছগ্রাম এলাকায় পৌঁছালে সেখানে বসে থাকা বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায় মিছিলকারীরা। এ ঘটনায় বিএনপি-যুবদল ও ছাত্রদলের ৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। অন্যদিকে মাটিরাঙ্গা উপজেলায় নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার পর থেকে উপজেলার তবলছড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর হামলা অব্যাহত রেখেছে সরকার দলীয় সমর্থকরা। এ পর্যন্ত সরকারি দলের হামলার শিকার হয়েছে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ৭ নেতাকর্মী।

বাঘা (রাজশাহী): রাজশাহীর বাঘায় পুলিশ বক্সে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার রাতে উপজেলার চন্ডিপুর তিন খুঁটি নামক স্থানে অবস্থিত পুলিশ বক্সে এই আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। লোকজন বলছেন, দুর্বৃত্তরা যদি পুলিশ বক্সে আগুন দিতে পারে তাহলে সাধারণ লোকজনের নিরাপত্তা কোথায়

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close