আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
আন্তর্জাতিক

নির্বাচন না হলে দেশ খাদের কিনারে চলে যাবে :ইংলাক

ওমেন আই :
থাইল্যান্ডের তত্ত্বাবধয়াক প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা বলেছেন, সরকারবিরোধীরা যেভাবে নির্বাচন পন্ড করার সংগ্রাম করে যাচ্ছেন তাতে দেশে চরম সাংবিধানিক সংকট তৈরী হবে। নির্বাচন না হলে দেশ খাদের কিনারে চলে যাবে বলে তিনি দেশবাসীর উদ্দেশে সতর্কবার্ণী উচ্চারণ করেছেন। এছাড়া সহিংসতা বন্ধে তিনি সেনাবাহিনীর মধ্যস্থতাও কামনা করেছেন। তিনি বিরোধীদের দাবি নিয়ে সংলাপে বসতে চান বলেও জানান।

কিন্তু বিক্ষোভকারীরা আগে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ ও অনির্বাচিত পিপলস কাউন্সিল গঠন করার দাবি জানিয়েছে। সরকারি সূত্র জানায়, পিপলস কাউন্সিল গঠন করলে ইংলাকের হয়তো নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ থাকবে না। কারণ, বিক্ষোভকারীদের প্রধান দাবি ইংলাক কিংবা তার পরিবারের সবাইকে রাজনীতি থেকে দূরে থাকতে হবে। তাদের কাছে সংস্কার মানে ওটাই।

এদিকে, বিক্ষোভ-কারীদের নেতা সুথেপ থগসুবান শনিবার দেশের শীর্ষ সেনাকর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাত্ করেছেন। তিনি সংঘাত দূর করার উপায় নিয়ে আলোচনা করেছেন বলে তার সমর্থকদের একটি সূত্র জানিয়েছে। কিন্তু ইংলাক সিনাওয়াত্রা আবারো বলেছেন, একটি গণতান্ত্রিক দেশে রাজনৈতিক সমস্যার সবড়ে বড় ওষুধ হচ্ছে নির্বাচন। কারণ গণতান্ত্রিক দেশে নির্বাচনের মাধ্যমেই জনগণের হাতে বিচারের গুরুদায়িত্ব তুলে দেয়া হয়। তিনি বলেছেন, রাতারাতি কোনো সমস্যা সমাধান করা যায় না। তবে নির্বাচনের মাধ্যমে সংকটের মাত্রা কমানো যায়। স্থানীয় প্রশাসনকে শক্তিশালী করে সাধারণ মানুষকে মানব সম্পদে রূপান্তরিত করা যায়। বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, আপনারা যদি চান সরকার ক্ষমতায় ফিরে না আসুক, তবে রাজপথে লড়াইয়ের পরিবর্তে ব্যালটের লড়াই করুন। সরকারকে পুনরায় ক্ষমতায় আসা থেকে দূরে রাখুন। কিন্তু নির্বাচনে অংশ নিতে না দেয়ার দাবি অন্যায়, অসাংবিধানিক এবং অগণতান্ত্রিক।

তিনি বলেন, বিক্ষোভকারীরা যে রাজনৈতিক সংস্কার চাচ্ছে, সেই সংস্কারের একমাত্র দাবি হওয়া উচিত একটি অবাধ, স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন। পার্লামেন্ট যেহেতু বিলুপ্ত হয়ে গেছে তাই নির্বাচন না হলে দেশ চরম সংকটে পড়ে যাবে এবং খাদের কিনারে চলে যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close