আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
শিল্প-সংস্কৃতি

বঙ্গবন্ধুর চিত্র প্রদর্শনী

ispr_bg_187793728ওমেনআই: গ্যালারি কসমস এ ‘ব্রেভ হার্ট’ শীর্ষক দলীয় চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন হয়ে গেল গতকাল। ৭৫ জন শিল্পী শোক দিবসকে ঘিরে নিজেদের চিন্তা-ভাবনাকে তুলে ধরলেন দর্শকের সামনে। ১৪ই আগস্ট সন্ধ্যা ৬টায় প্রদর্শনীটি উদ্বোধন করা হল। প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী শিল্পীরা স্বতন্ত্র চিন্তায় নিজ শিল্পকর্মে ফুটিয়ে তুলেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান-কে। সর্বমোট ৮০টি শিল্পকর্মে উঠে এসেছে জাতির পিতার নানান অভিব্যক্তি।

প্রদর্শনীতে বঙ্গবন্ধু কখনো প্রস্ফুটিত শিল্পীর মানসে ‘আমার বাংলা’ শিরোনামে। কখনো বা যুদ্ধ-বিদ্ধ্বস্ত খণ্ড-বিখণ্ড মাংসপিণ্ড, কখনো আবার সেই ব্যক্তিত্বশীল দৃঢ় অবয়ব। শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদ-এর সেই চিরচেনা ছবিটিও চোখে ভেসে ওঠে, কাঁপিয়ে দিয়ে যায় ক্রোধে-আক্রোশে। বঙ্গবন্ধু ক্ষত-বিক্ষত-রক্তাক্ত আর সেই সিঁড়ি।

আঁধার আর কালো কী গাঢ়, এর মাঝে উজ্জ্বল হয়ে আছেন বঙ্গবন্ধু ফটোগ্রাফার নাসির আলী মামুন-এর ফটোগ্রাফে। রক্তজবার লালের মাঝে যেন শুভ্র বেলী ফুল, রায়েরবাজার বদ্ধভূমিকেও ভুলেন নি শিল্পীরা তুলে ধরতে। লাল-সবুজের পতাকা আর মায়ের হাতে শিশু সন্তান, সেখানেও ভাস্বর হয়ে ওঠে জনকের মুখ। সব মিলিয়ে, সমস্ত লিখে রাখা যায় সম্ভবত এক নামেই, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। বঙ্গবন্ধু স্লোগানে, মিছিলে, হাতে ধরা পাইপে, দৃপ্ত চাহনীতে। একের পর এক দৃশ্যকল্পজুড়ে।

কালো আর নীল লেপটে আছে যে দৃশ্যে সেই আঁধার করে আসা নীল বেদনাতেও যেন তিনি ভেসে উঠেছেন শিল্পীমনে। বিষণ্নতা প্রগাঢ় হয় পথ চলতে চলতে হঠাৎ দেখতে পেলে কোন চেয়ারে একলা পড়ে মুজিব কোট, পাশেই অবহেলায় পড়ে থাকা সেই চিরচেনা চশমা-পাইপ। কোথাও মুছে মুছে যাচ্ছে ৭ই মার্চের ভাষণ, কেবল অস্পষ্ট লেখায় বাঙালি রয়ে-সয়ে উঁকি দেয়, ব্যস! যেন ইতিহাস গল্প শোনাচ্ছে এক!

বঙ্গবন্ধু উজ্জ্বলতা নিয়েও উপস্থিত কদাচিৎ শিল্পীর তুলিতে। কখনও বা চিন্তাক্লিষ্ট অবয়ব – হাস্যোজ্জ্বল খুশি মুখ আর মায়ের স্নেহে বঙ্গবন্ধু ধরা পড়েছেন একই ক্যানভাসে। আচমকা ভীষণ ঘূর্ণিঝড়ের মাঝে ধীর-স্থির জনকের মুখ। তখন বোধহয় সেই মুখচ্ছবি প্রেরণার নামান্তর। আমাদের অদম্য সাহসের কথা বলে যায়।

আমাদের মনে করিয়ে দেয় ১৯৭৫ কে। হাতে হাত মিলিয়ে আঁতাত করছে কোন শক্তি এমন কোন চিত্রের সামনে গিয়ে দাঁড়ালে। মুক্তিযোদ্ধা, ১৫ই আগস্ট শহীদ হয়ে যাওয়া মুখগুলো, পৃথকভাবে কোথাও শুধুমাত্র নিষ্পাপ মুখ এক শেখ রাসেল-এর ইতিহাসের টুকরো টুকরো গল্পগুলোই টুকে রাখা হয়েছে এভাবে।

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের মাননীয় ডেপুটি স্পিকার জনাব ফজলে রাব্বি মিয়া, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গতকাল। প্রদর্শনীতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব ইকবাল সোবহান চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য জনাব আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার জনাম পঙ্কজ সরন।

প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী শিল্পীরা হলেন- শিল্পী সমরজিৎ রায় চৌধূরী, হামিদুজ্জামান খান, কালিদাস কর্মকার, তাজুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান, বীরেন সোম, শাহাবুদ্দিন আহমেদ, অলোকেশ ঘোষ, ফরিদা জামান, নাইমা হক, নাসির আলী মামুন, নাসিম আহমেদ নাদভী, জামাল আহমেদ, নাসরিন বেগম, রেজাউন নবী, রোকেয়া সুলতানা, আইভি জামান, রাশা, সৈয়দ হাসান মাহমুদ, আহমেদ সামসুদ্দোহা, সাইদুল হক জুইস, শিশির ভট্টাচার্য, শেখ আফজাল, শামীম সুবরানা, ফারিহা জেবা, আতিয়া ইসলাম এ্যানি, দিলীপ কুমার কর্মকার, মনিরুজ্জামান মনির, গুলশান হোসেন, কনকচাঁপা চাকমা, নাসিমা খানম কুইনি, সমীরন চৌধুরী, আমিরুল মোমেনিন চৌধুরী, প্রশান্ত কর্মকার, রাফি হক, মোস্তফা জামান প্রমুখ।

প্রদর্শনীটি আগামী ৩১শে আগস্ট ২০১৫ তারিখ পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

ঢাকা, ১৫ আগস্ট(্ওমেনঅাই)//এসএল//

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close