আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
রাজনীতি

আ.লীগের আহ্বানে খালেদার আংশিক সাড়া!

imagesওমেনআই: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন নেতা আহ্বান জানিয়েছিলেন ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে জন্মদিন পালন না করতে। সেই আহ্বানে আংশিক সাড়া দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ১৫ আগস্টের প্রথম প্রহরে এবার তিনি কেক কাটেননি। শোকের পুরো দিনও জন্মদিনের সব আনুষ্ঠানিকতা থেকে বিরত থাকেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। তবে দিন শেষে রাত সোয়া ৯টার দিকে বেশ ধুমধামেই জন্মদিন পালন করলেন খালেদা জিয়া।

শনিবার সন্ধ্যার পর থেকেই খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে চলতে থাকে জন্মদিন উদযাপনের প্রস্তুতি। নেতাকর্মীরা ফুল হাতে আসতে থাকেন দলীয় প্রধানকে শুভেচ্ছা জানাতে। এ উপলক্ষে গুলশান কার্যালয় সাজানোও হয়। রাত সোয়া ৯টায় জন্মদিনের কেক কাটার আগে তার মঙ্গল কামনায় দোয়া পড়া হয়। পরে খালেদা জিয়া দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে চারটি কেক কাটেন। চারটি কেকের দুটি আনা হয় বিএনপির পক্ষ থেকে, একটি ছাত্রদলের ও একটি যুবদলের পক্ষ থেকে। এ সময় দলের বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে জাতীয় শোক দিবসের প্রথম প্রহরে কেক না কাটায় খালেদা জিয়ার প্রশংসা করেছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তাদের ভাষ্য, খালেদা জিয়ার সুমতি হয়েছে। তিনি হয়তো আর শোক দিবসে কেক কাটবেন না। এজন্য তাকে ধন্যবাদ জানান আওয়ামী লীগ নেতারা।

শনিবার সন্ধ্যায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ‘খালেদা জিয়ার ভদ্রতাজ্ঞান হয়েছে। জাতীয় শোক দিবসে ভুয়া জন্মদিনের কেক না কাটা সুখবর।’

জানতে চাইলে নৌপরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, খালেদা জিয়ার এতদিন পর সুমতি হয়েছে। তিনি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের কথায় সাড়া দিয়ে ‘তথাকথিত’ জন্মদিনে কেক না কাটায় তাকে ধন্যবাদ জানাই।

বিভিন্ন সূত্রের খবরে জানা যায়, বিএনপিমনা বুদ্ধিজীবী হিসেবে পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি এমাজউদ্দিন আহমেদসহ বেশ কয়েকজন শোকের দিনে জন্মদিন উদযাপন না করতে খালেদা জিয়াকে পরামর্শ দেন। একটি অনুষ্ঠানকে ঘিরে বিনা কারণে উত্তেজনা সৃষ্টি বন্ধ করতেই তাদের এমন পরামর্শ। এ বিষয়ে ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে আমি কিছুদিন আগে বেগম খালেদা জিয়াকে ১৫ আগস্ট জন্মদিন উদযাপন না করার অনুরোধ করেছিলাম। তিনিও বিষয়টিকে পজিটিভলি নিয়েছিলেন। হয়তো সে কারণে ১৫ আগস্ট রাতের প্রথম পক্ষে এবার জন্মদিন উদযাপন হয়নি।”

তিনি বলেন, “আমার পরামর্শ ছিল একটা অনুষ্ঠানকে ঘিরে বিনাকারণে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। আর জন্মদিন তো ওইদিনেই করতে হবে এমনটা তো ঠিক না। এটা একটা ভালো দৃষ্টান্ত।”

খালেদা জিয়া নিজে থেকে আগ্রহী না হলেও নেতাকর্মীদের আয়োজনে তাকে থাকতে হয় বলেও দাবি করেন এমাজউদ্দিন আহমেদ।

ঢাকা, ১৬ আগস্ট(্ওমেনঅাই)//এসএল//

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close