আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
স্বাস্থ্য

এবার গ্যাস্ট্রিকের ঘরোয়া ওষুধ

ada wmnওমেনঅাই: গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভোগেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। যার অন্যতম লক্ষণ পেটে গ্যাস জমা। মূলত লাইফ স্টাইল থেকেই এ সমস্যার উদ্ভব। যে কোনো বাড়িতেই অন্তত এক পাতা এন্টাসিড জাতীয় ওষুধ মিলবে। এতদিনে নিশ্চয় বুঝে গেছেন ওষুধ খেয়েও সমস্যা দূর হয় না। কিন্তু ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যেগুলো প্রয়োগে করলে গ্যাসের সমস্যা দূরে রাখা যায়।
আসুন জেনে নিই তেমন কিছু ঘরোয়া সমাধানের কথা—
কলা : দিনে অন্তত দুটো কলা খান। পেট পরিষ্কার রাখতে কলার জুড়ি মেলা ভার।
ঠাণ্ডা দুধ : পাকস্থলির গ্যাস্ট্রিক এসিডকে নিয়ন্ত্রণ করে এসিডিটি থেকে মুক্তি দেয় ঠাণ্ডা দুধ। এক গ্লাস ঠাণ্ডা দুধ পান করলে এসিডিটি দূরে থাকবে।
দারুচিনি : হজমের জন্য খুবই ভাল। এক গ্লাস পানিতে আধ চামচ দারুচিনির গুঁড়ো দিয়ে ফুটিয়ে দিনে ২-৩ বার খেলে গ্যাস দূরে থাকবে।
মৌরি : মৌরি ভেজানো পানি পান করলে গ্যাস কমে।
জিরা : পেটের গ্যাস, বমি, পায়খানা, রক্তবিকার প্রভৃতিতে অত্যন্ত ফলপ্রদ জিরা। জ্বর হলে ৫০ গ্রাম জিরা আখের গুড়ের সঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে ১০ গ্রাম করে পাঁচটি বড়ি তৈরি করতে হবে। দিনে তিনবার একটি করে বড়ি খেলে ঘাম দিয়ে জ্বর সেরে যাবে।
লবঙ্গ : ২-৩টি লবঙ্গ মুখে দিয়ে চুষলে বুক জ্বালা, বমিবমি ভাব, গ্যাস দূর হয়। সঙ্গে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়।
এলাচ : লবঙ্গের মত এলাচ গুঁড়ো খেলে অম্বল দূরে থাকে।
পুদিনা পাতা : এককাপ পানিতে ৫টি পুদিনা পাতা দিয়ে ফুটিয়ে খান। পেট ফাঁপা, বমিভাব দূরে রাখতে এর বিকল্প নেই।
আমলকি : আমলকি টুকরো করে রোদে শুকিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়।
আদা : পেটে গ্যাস ও বদহজমজনিত সমস্যা সমাধানে আদা খুব উপকারী। খাবারে আদা যোগ করে বা কিছু পরিমাণ আদা চিবিয়ে রসটুকু গ্রহণ করলে পেটের গ্যাস প্রতিরোধ করা যায়।
সরিষা : খাবারের সঙ্গে সরিষা যোগ করে এ উপকার পেতে পারেন।

জি নিউজ অবলম্বনে।

ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর (ওমেনঅাই)// এসএল//

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close