আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অপরাধ

যৌতুক না দেয়ায় গৃহবধূকে গাছে বেঁধে পিটুনি!

97935581bd206284c9d13782f69e49f6_XLওমেনঅাই: যৌতুকের জন্য এক গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। লালমনিরহাটে আমেনা বেগম বাতাসী (৩০) নামের এ নারীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তার শ্বশুর ও শাশুড়িকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

শনিবার বিকেলে সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের চরখাটামারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত আমেনাকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের চরখাটামারী গ্রামের আমির হোসেন (৬০) ও তার স্ত্রী আজিরন বেগম (৫৫)।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের চরখাটামারী গ্রামের মৃত আব্দুল বারিকের মেয়ে আমেনা বেগমের সঙ্গে প্রায় পাঁচ বছর আগে একই গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে আব্দুল আজিজ মিয়ার (৩৫) বিয়ে হয়। এরই মধ্যে এই দম্পতির ঘরে জন্ম নেয় একটি কন্যা সন্তান।

আহত আমেনা বেগম অভিযোগ করে বলেন, ‘বিয়ের পর থেকে আমার শ্বশুরবাড়ির লোকজন যৌতুক বাবদ ৫০ হাজার টাকা দাবি করে আসছিল। কিন্তু বাবার বাড়ি থেকে তাদের দাবিকৃত টাকা দিতে না পারায় আমার ওপর নেমে আসে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন। কন্যা সন্তান জন্ম দেওয়ার পর থেকে আমার ওপর নির্যাতন আরও বেড়ে যায়।

এরই মধ্যে শনিবার সকালে আমার স্বামী আজিজকে অন্যত্র বিয়ে দিতে মেয়ে দেখতে পাঠান শ্বশুর-শাশুড়ি। আমি এ বিষয়ে প্রতিবাদ করলে আমার শ্বশুর ও শাশুড়ি আমাকে চুল ধরে টেনে-হিঁচড়ে বাড়ির পাশে সুপারি বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে তারা আমার এক হাত ও এক পা সুপারির গাছে বেঁধে লোকজনের সামনে মারধর শুরু করেন। এরপর আমি আর কিছু বলতে পারি না। আমাকে কে হাসপাতালে এনেছে তাও জানি না।’

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএইচ এম মাহফুজার রহমান জানান, যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। সন্ধ্যায় এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি মামলা করেছেন নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ। এরপরই আটক শ্বশুর ও শাশুড়িকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close