আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
লাইফ স্টাইল

যে খাবার খেলে থাকবেনা রক্তশূন্যতা

19ওমেনঅাই: এনিমিয়া বা রক্তশূন্যতা একটি প্রচলিত সমস্যা।

শরীরে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে গেলে রক্তশূন্যতা হয়। সাধারণত মেয়েরা এই সমস্যায় বেশি ভোগেন।

রক্তশূন্যতা হওয়ার বিভিন্ন কারণ রয়েছে। যেমন : শরীরে আয়রনের ঘাটতি, ভিটামিন বি ১২-এর ঘাটতি, ধূমপান, কোনো কারণে অতিরিক্ত রক্তপাত ইতাদি।

রক্তশূন্যতার লক্ষণ ব্যক্তিভেদে বিভিন্ন রকম হয়। অবসন্নতা, ক্লান্তিভাব, বমি, ঘাম হওয়া, মলের সঙ্গে রক্ত যাওয়া, ছোট শ্বাস, বেশি ঠান্ডা অনুভব করা ইত্যাদি রক্তশূন্যতার লক্ষণ হতে পারে।

কিছু খাবার রয়েছে যা রক্তশূন্যতা প্রতিরোধে সাহায্য করে। রক্তশূন্যতা প্রতিরোধ করবে এমন কয়েকটি খাবারের নাম জানিয়েছে লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই।

১. আনার –
আনার আয়রন এবং ভিটামিন সি-এর ভালো উৎস। এটি দেহে রক্তসঞ্চালের পরিমাণ বাড়ায়। এটি ঝিমুনি ভাব, দুর্বলতা, অবসাদ দূর করতে সাহায্য করে। নিয়মিত আনার খেলে রক্তশূন্যতা প্রতিরোধ হয়।

২. টমেটো –
টমেটো ভিটামিন সি-এর ভালো উৎস। এটি রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধেও সাহায্য করে। দেহের আয়রনকে শোষণ করতে ভিটামিন সি ভালো কাজ করে। প্রতিদিন দুই গ্লাস টমেটোর জুস খাওয়া রক্তশূন্যতা প্রতিরোধে সাহায্য করে।

৩. পালং শাক –
পালং শাক রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধে খুব উপকারী। এর মধ্যে রয়েছে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন এ, ই, বি৯, সি। এ ছাড়া রয়েছে আয়রন, আঁশ ও বেটা কেরোটিন। নিয়মিত পালং শাক খেলে রক্তশূন্যতা প্রতিরোধ হয়।

৪. সয়াবিন –
সয়াবিনে রয়েছে উচ্চমাত্রায় আয়রন এবং ভিটামিন। এর মধ্যে থাকা সাইটিক এসিড রক্তস্বল্পতার সঙ্গে লড়াই করে। সয়াবিনের রয়েছে কম পরিমাণ চর্বি ও প্রোটিন। প্রোটিনও এনিমিয়া প্রতিরোধে উপকারী।

৫. লাল মাংস –
লাল মাংসের মধ্যে রয়েছে আয়রন, ভিটামিন বি। যেমন : গরুর মাংস, খাসির মাংস। এই মাংস রক্তস্বল্পতা দূর করতে এবং শরীরের সব কোষে অক্সিজেন ভালোভাবে সরবরাহ করতে সাহায্য করে।

৬. ডিম –
ডিমের মধ্যে রয়েছে প্রোটিন ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। রক্তস্বল্পতা কমিয়ে শরীরে রক্তের পরিমাণ বাড়াতে ডিম খুব উপকারী। ডিমের কুসুমের মধ্যে রয়েছে আয়রন। এটি শরীরে লোহিত রক্তের পরিমাণ বাড়ায়।

ঢাকা, ১৪ নভেম্বর (ওমেনঅাই২৪ ডটকম)//এসএল//

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close