আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অপরাধ

ঐশীর জামিন নামঞ্জুর

ওমেন আই :
পুলিশের বিশেষ শাখার পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান হত্যা মামলার আসামি মেয়ে ঐশীর জামিন নামঞ্জুর করেছে আদালত। তবে তার ‘ও’ লেভেল পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য কারাগারে বইখাতা প্রেরণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ সকালে ঢাকা মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূর এ আদেশ দেন।
এর আগে ঐশীকে আদালতে হাজির করে তার পক্ষে জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবী প্রকাশ চন্দ্র বিশ্বাস।
এর আগেও দুই দফা জামিন আবেদন করা হয় ঐশীর পক্ষে। তবে আদালত বরাবরই তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।
এদিকে আদালতে শিগগিরই অভিযোগপত্র দাখিল করবে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গোয়েন্দা পুলিশ এ ব্যাপারে তদন্ত কাজ প্রায় গুছিয়ে এনেছে। ইতিমধ্যেই প্রয়োজনীয় সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ শেষ হয়েছে। প্রয়োজনীয় রিপোর্ট এখন তদন্ত কর্মকর্তার হাতে এসেছে।
সূত্র জানিয়েছে, অভিযোগপত্রে ঐশীকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। হত্যাকান্ডে ঐশীকে তার বন্ধু জনি, রনি ও গৃহপরিচারিকা খাদিজা আক্তার সুমীর সহযোগিতা করার কথা থাকছে। ঐশী ইতিমধ্যেই হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। জনি ও রনির বিরুদ্ধে হত্যাকান্ডে সহযোগিতা করা ছাড়াও খুনের ঘটনায় প্ররোচিত করার কথাও থাকছে অভিযোগপত্রে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রয়োজনী সব আলামত এখন পুলিশের হাতে। আলামত হিসেবে সংগ্রহ করা হয়েছে মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমানের রক্তমাখা কাপড়, হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি ও কফি খাওয়ার মগ। ঐশীর রক্তমাখা সোনার অলঙ্কারও পুলিশ জব্দ করেছে। সংগৃহীত সব আলামাতের ডিএনএ পরীক্ষা করা হলে তাতে সবকিছুতে মিল পাওয়া যায়।
জানা গেছে, নিহত দম্পতির পাকস্থলী থেকে নমুনা নিয়ে তাও পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার রিপোর্টে দুজনের পাকস্থলীতে ঘুমের ওষুধ ব্রোমাজিপাম পাওয়ার কথা স্বীকার করেছে। গ্রেফতারের পর ঐশী স্বীকার করেছে যে বাবা ও মাকে হত্যা করার আগে কফির সঙ্গে কড়া ঘুমের ওষুধ ব্রোমাজিপাম মিশিয়ে দিয়েছিল। গোয়েন্দা পুলিশ কফির মগটি আলামত হিসেবে জব্ধ করে সেটিও পরীক্ষা করে তাতে ঘুমের ওষুধ ব্রোমাজিপাম মেশানোর প্রমাণ পেয়েছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের ইন্সপেক্টর মো. আবুল আল খায়ের মামলার ব্যাপারে মাতব্বর জানান, তদন্ত কাজ শেষ হয়ে গেছে। যে কোনো সময় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close