আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অপরাধ

এবার গ্রামপ্রধানের নির্দেশে গণধর্ষণ

ওমেন আই:
ভিন্ন জাতের ছেলেকে ভালবাসার ‘অপরাধে’ পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের এক তরুণীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। গ্রামপ্রধানের নির্দেশে ১২ জন গ্রামবাসী মিলে ২০ বছরের ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি ও বিভিন্ন ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানায়, বীরভূমের লাভপুর থাকার রাজারামপুড়ে ভিন্ন সম্প্রদায়ের এক যুবকের সাথে ওই তরুণীর পাঁচ বছর ধরে সম্পর্ক চলছিল। সোমবার তরুনীর বাড়িতে ওই যুবক বিয়ের প্রস্তাব দিতে গেলে গ্রামবাসী তাকে ধরে ফেলে। এরপর দু’জনকেই গাছের সাথে বেঁধে রেখে সালিশ বসানো হয়। সালিশে তাদেরকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা ধার্য হয়। যুবকটি টাকা দিতে পারলেও মেয়েটির পরিবার টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় গ্রামপ্রধান বলাই মাড্ডির নির্দেশে ১২ জন গ্রামবাসী ধর্ষণ করে মেয়েটিকে।

ঘটনাটি সোমবার ঘটলেও মেয়েটির পরিবার বুধবার পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাতে সাহস পায়। পরে বুধবার রাতে পুলিশের পক্ষ থেকে মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

এ ঘটনায় ওই গ্রামপ্রধানসহ ১৩ জন গ্রামবাসীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

বীরভূমের পুলিশ সুপার সি সুধাকর বলেন, ‘গ্রামপ্রধানসহ ধৃত ১৩ জনের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ দায়ের হয়েছে।’ গ্রামপ্রধান ওই তরুণীরই দূরসম্পর্কের আত্মীয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

সাংবাদিকদের কাছে তরুণী বলেন, আমরা গরিব মানুষ, টাকা কোথায় পাব? সে কথা জানাতেই মোড়ল গ্রামের লোকদের বললেন, ‘জরিমানা দিতে না পারলে তোরা ওকে নিয়ে মস্তি কর’। ভাই-বাপ-দাদার বয়সী লোকগুলো সারা রাত আমার উপরে অত্যাচার করল।’

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, চিকিৎসকরা তরুণীর শারীরিক নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ভারতে একের পর একের গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেই চলছে । ২০১২ সালে দিল্লীর গণধর্ষণের ঘটনায় বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে ভারত। কিন্তু এরপরেও গণধর্ষণের ঘটনা কমছে না।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close