আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অর্থনীতি

৭ টি কোম্পানি পোশাক কারখানা পরিদর্শন করবে

ওমেন আই: সাতটি কোম্পানি পোশাক কারখানা পরিদর্শন করতে পারবে। তবে এককভাবে কোন ব্র্যান্ড কারখানা পরিদর্শন করতে পারবে না এ্যালায়েন্সের মাধ্যমে এই কারখানা পরিদর্ন করতে হবে বলে জানিয়েছেন বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার বিকালে বিজিএমইএ কার্যালয়ে উদ্যোক্তাদের সাথে সাউথ আমেরিকান ক্রেতাদের জোট এ্যালায়েন্সের এক মতবিনিময় সভা শেষে বিজিএমইএ সভাপতি এ কথা জানান।

আতিকুল ইসলাম বলেন, সেপ্টেম্বরের মধ্যে এ্যালায়েন্স ৮শ কারখানা পরিদর্শন করবে। আগে জেসিপেনি, ওয়াল মার্ট, গ্যাপ আলাদা আলাদা করে থার্ট পার্টি ছিল। গত ৩০ দিনে কারখান পরিদর্শন করতে ২৪ টি থার্ট পার্টি এজেন্সি এসেছে । কারখানা পরিদর্শন করে তারা ভিন্ন ভিন্নভাবে নির্দেশনা দিত। এখন এ্যালায়েন্স বলে দিয়েছে কোনো ব্র্যান্ড সরাসরি কোনো কারখানা পরিদর্শন করতে পারবে না। সাতটি কোম্পানিকে দেয়া হয়েছে। সাতটি কোম্পানির মাধ্যমে পরিদর্শন করতে হবে। এটি একটি বড় মেসেজ। গার্মেন্টের মালিকরা হাফ ছেড়ে বাচবেন।

তিনি বলেন, এরই মধ্যে ২২২ টি কারখানা পরিদর্শন করা হয়েছে। এইগুলো আর পরিদর্শন করা হবে না। পরিদর্শনের আগেই বায়ারদের চাপে ও অর্ডার বাতিলের ভয়ে অনেক কারখায় ফায়ার সেফটির জন্য ফায়ার ডোর লাগিয়েছেন। এটা মালিকরা সদইচ্ছার কারণে লাগিয়েছেন। কারণ বায়াররা তখন খুব চাপ দিয়েছিল। প্রতিটি ফায়ার ডোরের দাম ৭০ হাজার টাকা।

তিনি আরো বলেন, কারখানা নিরাপত্তায় যে সব সরঞ্জামাদি লাগবে সরকার তা শুল্ক মুক্ত করে দেন। আমরা চাই না বেবজার গাড়ী আমদানীর মত সুবিধা দেয়া হউক। আমরা চাই ফায়ার সেফটি, বিল্ডিং সেফটি, ইকো ফ্রেন্ডলি কারখানার জন্য সুবিধা দেয়া হউক।

আতিকুল ইসলাম বলেন, যে কারখানাগুলো পরিদর্শন করা হয়েছে সেগুলোতে অবকাঠামোগত ঝুঁকি পাওয়া যায়নি। কারখানার নিরাপত্তার সরঞ্জামাদি আমদানিতে বাজেটে একটি ভূমিকা রাখার কথাও বলেন তিনি।

এ্যাকর্ড কারখানা পরিদর্শন শুরু করেছে ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে। আর এ্যালায়েন্স কারখানা পরিদর্শন শুরু করেছে ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে।

প্রসঙ্গত, সরাদেশে এ্যাকর্ড ১৮ শ কারখানা এবং এ্যালায়েন্স ৮শ কারখানা পরিদর্শন করবে। বাকী কারখানাগুলো ন্যাশনাল এ্যাকশন প্লান অনুযায়ী আইএলও এবং বুয়েট পরিদর্শন করবে।

মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, বিজিএমইএ সহসভাপতি এস এম মান্নান কচি, সহ সভাপতি রিয়াজ বিন মাহমুদ, সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, এ্যালায়েন্সের বেনডেনটল, ট্রেসি ও উইসলে উদ্যোক্তারা।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close