আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
জাতীয়

সু চির সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক মঙ্গলবার

ওমেন আই: আগামী মঙ্গলবার মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চির সঙ্গে প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

৪ মার্চ মঙ্গলবার মিয়ানমারের রাজধানী নে পি দওতে অনুষ্ঠেয় বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেকটরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকনোমিক কো-অপারেশনের (বিআইএমএসটিইসি) সম্মেলনের আগের দিন তাদের এই বৈঠক হবে।

এটিই হবে শান্তিতে নোবেল বিজয়ী প্রতিবেশী দেশের নেত্রী সু চির সঙ্গে শেখ হাসিনার প্রথম বৈঠক।

সোমবার বিকাল ৪টায় মিয়ানমারের পার্লামেন্টে হাসিনা-সু চির বৈঠক হবে। প্রায় ১৫ বছর গৃহবন্দী থাকার পর ২০১০ সালের নভেম্বরে মুক্তি পান সূ চি। তার দীর্ঘদিনের কারাবাসকে ১৯৬২ সাল থেকে সামরিক শাসনে থাকা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মিয়ানমারে গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রামের ‘প্রতীক’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মিয়ানমারের বিরোধী দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছেন সু চি।

বিআইএমএসটিইসির তৃতীয় শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে সোমবার সকালে নে পি দওর উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ৩২ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন তিনি। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর টানা দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর এটাই হবে তার প্রথম বিদেশ সফর।

এছাড়া সম্মেলনের ফাঁকে ভারত, নেপাল ও ভুটানসহ বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানের পাশাপাশি মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট থেইন সেইনের সঙ্গেও বৈঠকের কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

১৯৯৭ সালে গঠিত বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেকটরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকনোমিক কো-অপারেশনের প্রথম শীর্ষ সম্মেলন ২০০৪ সালে ব্যাংককে এবং ২০০৮ সালে নয়া দিল্লিতে দ্বিতীয় শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, নেপাল ও ভুটানের এই জোটের এ অঞ্চলে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, জ্বালানি, পরিবহন ও যোগাযোগ, পর্যটন, কৃষি, পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, আন্তঃযোগাযোগ, সন্ত্রাস ও আন্তঃদেশীয় অপরাধ ও জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় কাজ করার কথা।

তৃতীয় শীর্ষ সম্মেলনে সদস্য দেশগুলোর সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানরা গত শীর্ষ সম্মেলনের পর অর্জিত অগ্রগতি পর্যালোচনা করবেন। সংস্থার যৌথ অঙ্গীকারের বিভিন্ন দিক নিয়ে মতবিনিময় এবং ভবিষ্যৎ করণীয় নির্ধারণ করবেন তারা।

সম্মেলন শেষে ৪ মার্চই দেশে ফেরার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close