আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অপরাধ

পাশবিক!

ওমেনআই ডেস্ক : তুচ্ছ ঘটনায় নেত্রকোনা সদরের কেগাতি এলাকায় এক নারীর উপর পাশবিক নির্যাতন চালিয়েছে প্রতিপক্ষরা। এসময় তার যৌনাঙ্গে লোহার রড ঢুকিয়ে নির্যাতন করা হয়। এতে তার স্বামী সন্তান বাধা দিলে তাদেরকেও মারাত্মক আহত করে প্রতিপক্ষের লোকজন। রোববার রাতের এ ঘটনার পর আহত নারীসহ চারজনকে নেত্রকোনা অধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, ভিক্ষা করে সংসার চালান নেত্রকোনা সদর উপজেলার কেগাতি ইউনিয়নের বাশাটি গ্রামের জুহুরা ও তার স্বামী হাবিবুর রহমান। শিশুদের ঝগড়া বিবাদকে কেন্দ্র করে রোববার ভোররাতে একই গ্রামের সবুজ ও ইসলামের সঙ্গে কথার কাটাকাটি হয় তাদের। এরই জেরে রোববার রাতে ঘুমের মাঝে পরিবারটির উপর হামলা চালায় প্রতিপক্ষরা। মারধরের এক পর্যায়ে জহুরা আক্তারের যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে পাশবিক নির্যাতন চালায় তারা। এসময় তার স্বামী ও সন্তানকেও আহত করা হয়। পরে স্থানীয়রা আহতদের নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
নেত্রকোনা আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতনের শিকার জোহরা আক্তার জানান, রাত আড়াইটার দিকে সবুজ ও ইসলাম উদ্দিন এসে তার ওপর এ পাশবিক নির্যাতন চালায়।
জোহরা আক্তারের স্বামী হাবীবুর রহমান জানান, মারধর করার সময় বাধা দিলে তাকে ও তার ছেলেকে মারাত্মক আহত করে প্রতিপক্ষরা। নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডের কর্তব্যরত নার্স রিফাত জাহান জানান, আহত নারীর ক্ষতস্থান থেকে এখনো রক্তক্ষরণ হচ্ছে।
হাসপাতালে কতব্যরত ইমারজেন্সি মেডিকেল অফিসার সাইফুল ইসলাম জানান, রোগীর এখনো রক্তক্ষরণ হচ্ছে।গাইনি বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা আসলে সঠিকভাবে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবেন। স্থানীয় কেগাতি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শারীফ তালুকদার আহতদের হাসপাতালে দেখতে এসে জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের কঠিন শাস্তি হওয়া দরকার।
এদিকে নেত্রকোনার পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সদর থানা পুলিশের ওসিকে বিষয়টি তদন্তে করে ব্যবস্থা নেয়ারও নিদের্শ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close