আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
সারাদেশ

পহেলা রমজান থেকে মাংস বিক্রি বন্ধের হুমকি

ওমেনআই ডেস্ক : রাজধানীতে পশুর হাটে অবৈধ চাঁদাবাজি বন্ধসহ বিভিন্ন দাবি পূরণে সরকারকে ১৫ দিনের আলটিমেটাম দিয়েছেন মাংস ব্যবসায়ী সমিতি। এ সময়ের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে পয়লা রমজান থেকে সারাদেশে কর্মবিরতি ও ধর্মঘটের হুমকি দিয়েছেন তারা।

আজ রোববার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব ও ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির উপদেষ্টা রবিউল আলম। এ সময় সংগঠন দুটির অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ব্যবসায়ীরদের দাবির মধ্যে রয়েছে- খাজনা কমানো, চাঁদাবাজি বন্ধ করা, চামড়া বিক্রির ব্যবস্থা করা, ডিএসসিসিতে স্থায়ী পশুর হাট তৈরি, মানসম্মত একাধিক কসাইখানা তৈরি ইত্যাদি।

বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ, সমস্যা ও দাবি তুলে ধরেন রবিউল আলম বলেন, দেড় বছর ধরে নির্ধারিত খাজনার চেয়ে বেশি অর্থ আদায় করছেন গাবতলী পশুর হাটের ইজারাদাররা। বিদ্যুৎ-পানি-গ্যাস সংযোগ বন্ধ হওয়ায় ট্যানারিগুলোও গরুর চামড়া কেনা কমিয়ে দিয়েছে। পশুর মাংস ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লুটেরারা কোটি কোটি টাকা লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গেছে যে, আন্দোলনের বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, দাম বেশি হওয়ায় গরু ও খাসির মাংস খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন সাধারণ মানুষ। ফলে মাংস বিক্রি কমে গেছে। বাংলাদেশে অর্ধেকের বেশি মাংসের দোকান বন্ধ হয়ে গেছে। সমস্যার সমাধান হলে গরুর মাংস ৩০০ টাকা ও খাসির মাংস ৫০০ টাকা কেজি পাওয়া যাবে বলে জানান রবিউল ইসলাম।

দেশের মাংস ব্যবসায়ীদের স্বার্থে আইনজীবীদের সহযোগিতা চেয়ে রবিউল ইসলাম বলেন, আমাদের কাছে সব ডকুমেন্টস আছে, এক্ষেত্রে একজন আইনজীবীর সহযোগিতা প্রয়োজন। অনেক বিষয়েই তো কত হৃদয়বান আইনজীবীরা স্বউদ্যোগে কাজ করেন। এক্ষেত্রে আমাদের সহযোগিতা করলে, মাংসের দাম কমে আসতে পারে।

দাবি আদায়ে এর আগে চলতি বছর ১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ধর্মঘট ডেকে পরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে সমঝোতা হলে ১৮ ফেব্রুয়ারি প্রত্যাহার করেন মাংস ব্যবসায়ীরা।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close