আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
বিনোদনস্লাইড

বিবাহবিচ্ছেদে যাচ্ছে শাকিব-অপু!

ওমেনআই ডেস্ক : ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় তারকা দম্পতি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের শিগগিরই আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ ঘটতে যাচ্ছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে শাকিবের একটি পারিবারিক সূত্র বিবাহবিচ্ছেদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
জানা গেছে, ‘মাস্ক’ নামের সিনেমার শুটিংয়ের কারণে এখন দেশের বাইরে আছেন শাকিব। সেখানে যাওয়ার আগে বিবাহবিচ্ছেদ প্রসঙ্গে শাকিব বলেন, আমি সিনেমার শুটিং নিয়ে এখন বেশি ব্যস্ত। একের পর এক নতুন কাজ যোগ হচ্ছে। এই বিষয়টা নিয়ে এখন কোনো মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। কিছু হলে অবশ্যই সবাই জানতে পারবেন।

এদিকে শাকিব-অপুর একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, দুজনের সংসার যে হচ্ছে না, এটা পুরোপুরি নিশ্চিত। কারণ, একটা সম্পর্কের মধ্যে যদি পারস্পরিক শ্রদ্ধা, সম্মান, ভালোবাসা না থাকে, সেখানে সংসার করা মুশকিল হয়ে পড়ে। শাকিব ও অপুর বিয়ের খবর প্রকাশ্যে চলে আসার পর দুজনের মধ্যে সম্পর্কের চূড়ান্ত অবনতি ঘটে। কোনোভাবেই এই সম্পর্কের উন্নতির লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। তাই বিবাহবিচ্ছেদই দুজনের জন্য উত্তম। যত দূর শোনা যাচ্ছে, অপুর সব পাওনা মিটিয়ে দেওয়ার প্রস্তুতিও চলছে।
ঘনিষ্ঠ আরও এক সূত্র জানিয়েছে, অপুর বিশ্বাসের ওপর ভীষণ নাখোশ শাকিব। আর দিনের পর দিন তা বেড়েই চলেছে। তাছাড়া শাকিব যে কাজ পছন্দ করেন না, অপু নাকি প্রতিনিয়ত সেসব করে চলছেন। শুধু কি তা-ই, মিডিয়ায় শাকিবকে যাঁরা পছন্দ করেন না, তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন অপু। সবকিছু মিলিয়ে নাকি অপুর ওপর শাকিব খুব বিরক্ত।
এ ব্যাপারে আজ শনিবার দুপুরে অপু বিশ্বাস বলেন, আমার কিছুই বলার নেই। শাকিবও এখন দেশের বাইরে আছে। আমার সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের ব্যাপারে কোনো কথা হয়নি। আমি আমার সন্তান নিয়ে ব্যস্ত আছি।
উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিয়ে হয়। গোপনে বিয়ে করার পর বেশ ভালোই ছিলেন এ তারকা দম্পতি। আট বছর আগের সে বিয়ের খবর জনসমক্ষে আসার সঙ্গে সঙ্গে দুজনের মধ্যে শুরু হয় সম্পর্কের টানাপোড়েন। পরিস্থিতি এমন অবস্থায় পৌঁছায় যে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস নিজেদের মধ্যে মুখ দেখাদেখি বন্ধ করে দেন। শুধু ছেলে আব্রামের কারণে মাঝেমধ্যে দেখা হলেও কথা হয়নি দুজনের। এবার তাঁদের সেই টানাপোড়েন চূড়ান্ত পরিণতির দিকে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close