আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
লাইফ স্টাইল

বিয়ে সম্পর্কে যে মিথ্যাগুলো সবাই বলে থাকে

বিয়ে সম্পর্কে আমাদের সমাজের নানান ভ্রান্ত ধারনা আছে। আর এই ভ্রান্ত ধারণা গুলোই মানুষ প্রচার করে থাকে। অনেকেরই ধারণা বিয়েই সম্পর্কের সকল সমস্যার সমাধান। আর এই ভুল ধারনার কারণে অনেকেই ভুল মানুষটিকে বিয়ে করে নানান অশান্তিতে আছেন। এমনকি বিয়ে ভেঙে যাওয়ার মত ঘটনাও ঘটছে অহরহ। জেনে নিন বিয়ে সম্পর্কে প্রচলিত তেমনই কিছু মিথ্যা সম্পর্কে।

বিয়ের পড়ে ঝগড়া হবে না

প্রেম করতেন যখন তখন প্রতিদিনই ঝগড়া হতো। খুব ছোট বিষয় নিয়েও নিয়মিত লেগেই থাকতো ঝামেলা। তখন বন্ধুরা বলেছিলো বিয়ে করলেই সব ঠিক হয়ে যাবে। ঝগড়াঝাটির অবসান ঘটবে বিয়ের পড়ে। কিন্তু বিয়ের পড়ে ঝগড়া ঝাটি তো মিটেইনি বরং সম্পর্কের আরো অবনতি ঘটেছে। এমন পরিস্থিতির স্বীকার অনেকেই। বিয়ের পড়ে ঝগড়া হবেনা এই আশায় একটি ভুল সম্পর্ককে বিয়ে পর্যন্ত টেনে নিয়ে যান অনেকেই। ফলে নানান ভোগান্তির স্বীকার হতে হয়।

সন্তান হলেই সংসার টিকে যাবে

বিয়ের পড়ে সাংসারিক অশান্তিতে যখন জীবন অতীষ্ট হয়ে যায় তখন অনেকেই বলেন সন্তান হলে সব ঠিক হয়ে যাবে। সন্তান হলো সংসারের বন্ধন দৃঢ় করার হাতিয়ার। কিন্তু যেই সম্পর্কটি ভুল সেটা সন্তান জন্মের পড়েও নানান সমস্যা সৃষ্টি করে। তাই সন্তান হলেই সংসার টিকে যাবে এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। বরং একটি দাম্পত্য অশান্তির মাঝে সন্তান জন্ম নিলে সেই সন্তানও বিড়ম্বনার স্বীকার হয়।

বিয়ে মানেই একাকিত্ব দূর হয়ে যাওয়া

বিয়ের মানেই কি একাকিত্ব দূর হয়ে যাওয়া? যারা একা আছেন তাদের ধারনা বিয়ে করলেই তাদের একাকিত্ব দূর হয়ে যাবে। কিন্তু নিজের পাশের মানুষটি যদি আপনার জন্য সঠিক নির্বাচন না হয় তাহলে সঙ্গী থাকার পরেও আপনি রয়ে যাবেন একা। মনের অমিল, চিন্তা-চেতনার পার্থক্য এবং আরো নানান কারণে বিয়ের পরেও আপনি হয়ে যেতে পারেন মানসিক ভাবে একা ও অসহায়।

বিয়ের পড়ে ছেলে/মেয়ে শুধরে যাবে।

অনেকেই বলেন যে ছেলে বখাটে তো কি হয়েছে বিয়ে করিয়ে দিলেই শুধরে যাবে আপনার ছেলে। কিংবা নেশা করে এমন ছেলে মেয়েদের ক্ষেত্রেও অভিভাবকরা এধরণের কথা বলে থাকেন। কিন্তু এটি বিয়ে সম্পর্কে একটি বড় মিথ্যা কথা। বিয়ের পড়ে ছেলে/মেয়ে কখনই নিজেকে শুধরে নিতে পারে না। বরং জোর করে বিয়ে করিয়ে দেয়ার কারণে বাবা মায়ের উপর এবং নিজের সঙ্গীর উপর অভিমান ও ক্ষোভ বাড়ে। ফলে এধরণের সম্পর্ক অধিকাংশ সময়েই টেকে না।

priyo.com এর সৌজন্যে

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close