আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
জাতীয়স্লাইড

দেশের উন্নয়নে দক্ষতা-সততার সঙ্গে কাজ করুন : প্রধানমন্ত্রী

প্রকৌশলীদের প্রতি আহ্বান

বাসস : সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে পেশাগত দক্ষতা, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে আরও সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে প্রকৌশলীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, ‘সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের দায়িত্ব আপনাদের ওপরই বর্তায়। কাজেই উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আপনারা পেশাগত দক্ষতা, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে আরও সক্রিয় ভূমিকা পালন করুন।‘

আজ শনিবার দুপুরে আইইবি খুলনা সেন্টারে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (ইআইবি)-র ৫৮তম কনভেনশন অনুষ্ঠানের উদ্বোধনের সময় ভাষণে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
সম্পদের সীমাবদ্ধতার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, স্বল্প খরচে টেকসই যন্ত্রপাতি নির্মাণ, স্থাপনা নির্মাণ ও মেরামত বিষয়ে প্রচুর গবেষণা করতে হবে।

তিনি বলেন, বিকল্প জ্বালানি ও জ্বালানি-সাশ্রয়ী যন্ত্রপাতি উদ্ভাবন, স্বল্প-ব্যয়ে বাড়িঘর নির্মাণের কৌশল ও প্রযুক্তি উদ্ভাবনে আপনাদের এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে টেকসই করার জন্য পরিবেশবান্ধব অবকাঠামো, ভূমিকম্প ও দুর্যোগ প্রবণ প্রযুক্তির ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে দেশ আর পিছিয়ে নেই উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই দেশকে ডিজিটালাইজেশন এবং প্রযুক্তি উন্নয়নের জন্য কাজ করে চলেছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা ই-গভর্নেন্স চালু করতে বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নিয়েছি। আমরা দেশবাসীর দোরগোড়ায় বিজ্ঞান ও তথ্য-প্রযুক্তির সুফল পৌঁছে দিতে চাই। প্রকৌশলীদের মেধাকে কাজে লাগিয়ে আমরা এ প্রক্রিয়াকে আরও দ্রুত এগিয়ে নিতে চাই।‘

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বিএনপির সমালোচনা করে বলেন, ‘১৯৯১-এর বিএনপি বিনা পয়সায় আন্তঃমহাদেশীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগ নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিল। তাদের মূর্খতা ও অজ্ঞতার কারণে বিনা পয়সার সংযোগ থেকে আমরা তখন বঞ্চিত হই’।

তিনি বলেন, ‘আমরা ১৯৯৬-এ দায়িত্ব গ্রহণের পর এ সংযোগ গ্রহণের উদ্যোগ নিই। আন্তঃমহাদেশীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগে আমরা অংশীদার হয়েছি। এই সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগ কোনো কারণে কাটা পড়লে টেলি ও ইন্টারনেট সেবা বিঘ্নিত হয়। এজন্য দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগ আমরা গ্রহণ করেছি। এর ফলে এ সঙ্কট দুর হওয়ার পাশাপাশি উচ্চগতির ইন্টারনেট ও ভয়েস সেবার সার্বক্ষণিক সুবিধা পাবে দেশের মানুষ।‘
’ টেলিফোন ও মোবাইল ফোনকে গ্রামের মানুষের হাতের নাগালে পৌঁছে দিয়েছি। ১ লাখ ২০ হাজার টাকার মোবাইল ফোন বর্তমানে ২-৩ হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। ফোর-জি ইন্টারনেট সেবাও চালু করেছি’ বলে জানান শেখ হাসিনা।
অল্প কিছুদিনের মধ্যেই বহুল প্রতীক্ষিত বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা হবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘টেলিযোগাযোগ ক্ষেত্রে এটি যুগান্তকারী বিপ্লব সাধন করবে বলে আমার বিশ্বাস।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিকাল ৩টায় খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে ৪৭টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ৫২টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close