আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
আপন ভুবনস্লাইড

একজন ফরিদা ইয়াসমিন সাংবাদিকতার উজ্জ্বল নক্ষত্র

খাদিজা খানম তাহমিনা : ফরিদা ইয়াসমিন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের ৬৩ বছরের ইতিহাসে প্রথম নারী সাধারণ সম্পাদক। তিনি শুধু বাংলাদেশেই নয়, দেশের গণ্ডি পেরিয়ে নিজেকে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে এই পদে প্রথম নারী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের ইতিহাসেও তিনি মাইলফলক রচনা করেছেন।
ফরিদা ইয়াসমিন লেখালেখির ক্ষেত্রে নারীর অধিকার, নারীর ক্ষমতায়ন, সমাজে বিরাজমান অসহায় নারীদের দুঃখ-দুর্দশা নিয়ে লিখে গেছেন। তিনি অনুধাবন করতেন, নারীরা পিছিয়ে আছে, অবহেলিত হচ্ছে, অথচ সমাজে অর্ধেকই নারী। তাই তিনি একজন নারী হয়ে নারীদের দুঃখ-কষ্ট, আবেগ-অনুভ‚তিগুলোকে ধারণ করে কলম চালাতেন। তিনি মনেপ্রাণে চাইতেন সাংবাদিকতা নারীদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হলেও নারী যেন তাদের যোগ্যতা দিয়ে চ্যালেঞ্জ নিয়ে এই পেশায় এগিয়ে আসে। তার হাত ধরেই সাংবাদিকতায় অনেক নারী এসেছেন। হাতে কলমে শিক্ষা দিয়েছেন তিনি তাদের। আমাদের দেশে এখনো নারীবান্ধব নিরাপদ কর্মক্ষেত্র তৈরি হয়নি, তবুও তিনি মনে করেন, নারীরা কর্মক্ষেত্রে নিজ কর্মগুণেও এগিয়ে যাবে। তিনি সব সময় চাইতেন, নারীরা যেন ঘরের চার দেয়ালে বন্দি না থেকে বেরিয়ে আসে, কাজ করে এবং সমাজের সকল স্তরে নেতৃত্ব দিতে এগিয়ে আসে।
ফরিদা ইয়াসমিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়াশোনা শেষ করেন। তার সাংবাদিকতার ক্যারিয়ার শুরু হয় দৈনিক বাংলার বাণী পত্রিকায় ১৯৮৯ সালে। তারপর তিনি দৈনিক মুক্তকণ্ঠেও কাজ করেন। ১৯৯৯ সালে তিনি বাংলাদেশের অন্যতম দৈনিক ইত্তেফাকে কাজ শুরু করেন। সেখানে তিনি পত্রিকাটির গুরুত্বপ‚র্ণ এবং জনপ্রিয় পাতা মহিলা অঙ্গন সম্পাদনার দায়িত্বে ছিলেন। বর্তমানে তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের বার্তা বিভাগের শিফট ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত আছেন। এছাড়াও তিনি অন্যতম শীর্ষ সাপ্তাহিক অন্যধারার কাগজ এবং অনলাইন সংবাদক্ষেত্র িি.িড়িসবহবুব২৪.পড়স সম্পাদনা এবং পরিচালনা করছেন।
ফরিদা ইয়াসমিন তার কর্মজীবনের সর্বক্ষেত্রে স্বীয় মেধা, মনন ও যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন। সাংবাদিকতার সকল দুর্গম পথ পেরিয়ে আজ তিনি এই পেশার শীর্ষে অবস্থান করে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।
ফরিদা ইয়াসমিন ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় প্রেস ক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচনে ৬২ বছরের ইতিহাসে জাতীয় প্রেস ক্লাবে প্রথমবারের মতো কোনো নারী সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার গৌরব অর্জন করেন। ১৯৫৪ সালে ঢাকায় প্রেস ক্লাবের যাত্রা শুরুর পর এর আগে কোনো নারী সাংবাদিকতা পেশাজীবীদের এই শীর্ষ সংগঠনটিতে শীর্ষ পদে আসতে পারেনি। ফরিদা ইয়াসমিন এর আগে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তিনবার সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন।
মিডিয়া জগতে নারীর ক্ষমতায়নে অনন্য দৃষ্টান্ত প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন কংগ্রেশনাল বিশেষ সার্টিফিকেট অর্জন করেছেন, এটা বাংলাদেশের প্রথম যে কোনো সাংবাদিক এই সম্মাননা অর্জন করেছেন। এই অর্জনের মধ্য দিয়ে তিনি দেশের জন্য সম্মান বয়ে এনেছেন। তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিনের এই অর্জন দেশে নারীর ক্ষমতায়নকে একধাপ বাড়িয়ে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, মেয়েদের সাংবাদিকতায় এগিয়ে আসতে ফরিদা ইয়াসমিনের এই অর্জন একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এছাড়াও তিনি আরও একটি প্রক্লেমেশন অর্জন করেন নিউইয়র্ক সিটির পাবলিক অ্যাডভোকেট (অ্যাটর্নি জেনারেল) লেটিসা জেমসের কাছ থেকে। পিআইবির চেয়ারম্যান সাবেক বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন বলেন, ফরিদা ইয়াসমিন তার অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে দক্ষতার সাথে সাংবাদিকতা করছেন এবং জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন, সেই সুবাদে কংগ্রেশনাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন।
সানজিদা খানম এমপি ফরিদা ইয়াসমিন সম্পর্কে বলেন, নারীর ক্ষমতায়নের দৃষ্টান্ত দেখালেন ফরিদা ইয়াসমিন।
সাংবাদিক ফরিদা ইয়াসমিন ওমেন জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের প্রেসিডেন্ট। মানব পাচারবিরোধী একটি সাংবাদিক সংগঠনের প্রেসিডেন্টের দায়িত্বও পালন করছেন তিনি। ফরিদা ইয়াসমিন নারী ও গণমাধ্যম বিষয়ক দক্ষিণ এশীয় বিষয়ক সংস্থার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ( ডি উ ই এম সি জে এ এ)-এর সহ-সভাপতি।
ফরিদা ইয়াসমিন ২০০৫ সালে ওকলাহোমা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘সাংবাদিকতায় লিডারশিপ প্রশিক্ষণ ফেলোশিপ অর্জন করেন। বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউট (পিআইবি)-সহ বিভিন্ন জাতীয়-আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান থেকে পেশাগত উচ্চতর প্রশিক্ষণ লাভ করেন।
সাংবাদিকতায় অবদানে স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি আরও অনেক পুরস্কার পেয়েছেন। জাতীয় মহিলা পরিষদ পদক, জাতীয় পরিষদ পদকসহ দেশীয়-আন্তর্জাতিক বহু পুরস্কার ও পদক লাভ করেছেন তিনি।
ফরিদা ইয়াসমিন একনিষ্ঠতা এবং অধ্যবসায়ের ফলে সাংবাদিকতার জগতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তার হাত ধরে অনেক নারী সাংবাদিক আজ নিজ নিজ অবস্থানে সুপ্রতিষ্ঠিত। তিনি শুধু নারী সাংবাদিকদেরই নন, বাংলাদেশের সব সাংবাদিকদের কাছেই একটি উজ্জ্বল নক্ষত্র।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close