আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
প্রযুক্তি

কিশোর-কিশোরীদের নেট ব্যবহার:মা-বাবা অন্ধকারে

netওমেন অাই: কিশোর-কিশোরীরা নিজেদের অনলাইন তৎপরতার বিষয়ে মা-বাবা কিংবা অভিভাবকদের সত্য তথ্য দিচ্ছে না। তারা অনলাইনে কোথায় যায় বা কার সঙ্গে যোগাযোগ করে সে ব্যাপারে সত্য তথ্য নানাভাবে গোপন করছে। আমেরিকার কিশোর-কিশোরীদের ওপর কম্পিউটার বিষয়ক নিরাপত্তা সংস্থা ম্যাকফি’র চালানো সমীক্ষায় এসব কথা উঠে এসেছে।ম্যাকফি বলেছে, জরিপে অংশ নেয়া অর্ধেক সংখ্যক মা-বাবা মনে করেন, তাদের কিশোর বয়সী সন্তানরা অনলাইনে কী করছে সে সম্পর্কে তারা সবই জানেন। অনলাইন কর্মকাণ্ডের বিষয়ে সন্তানরা তাদের মা-বাবার সঙ্গে খোলামেলা কথা বলছে। ফলে, ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে সন্তানদের ওপর সতর্ক দৃষ্টি রাখার কাজটিও তারা সঠিকভাবে করতে পারছেন বলে মা-বাবারা আত্মতৃপ্তি বোধ করেন।কিন্তু, ম্যাকফির সমীক্ষায় পাওয়া গেছে ভিন্ন চিত্র। ম্যাকফি বলছে, কিশোর-কিশোরীরা মা-বাবার কাছে তাদের অনলাইন কর্মকাণ্ডের বিষয়ে সত্য গোপন করছে। এ প্রবণতা দিন দিন বাড়ছে বলেও সমীক্ষায় দেখা গেছে। ম্যাকফির হিসাব মোতাবেক ৭০ শতাংশ কিশোর-কিশোরীই মা-বাবার নজরদারি এড়ানোর জন্য নানা পথ বের করেছে। মা-বাবা যেন সন্তানদের ইন্টারনেট ব্যবহার বা অনলাইন কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখতে পারেন সে জন্য ম্যাকফির অ্যান্টি-ভাইরাস প্রোগ্রামের সঙ্গে বিশেষ প্যারেন্ট কন্ট্রোল প্রোগ্রাম দেয়া আছে। ২০১০ সালে চালানো এ সমীক্ষার সঙ্গে সাম্প্রতিক চালানো সমীক্ষার তুলনা করে ম্যাকফি দেখতে পেয়েছে- সে সময় শতকরা ৪৫ শতাংশ কিশোর-কিশোরী অনলাইন ততপরতার বিষয়ে মা-বাবাকে ফাঁকি দেয়ার কথা স্বীকার করেছিল।ম্যাকফি বলছে, ফাঁকি দেয়ার জন্য সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত পদ্ধতি হলো- ইন্টারনেট ব্রাউজারের হিস্ট্রি মুছে ফেলা কিংবা মা-বাবা ঘরে ঢুকছেন টের পাওয়া মাত্রই ব্রাউজার মিনিমাইজ করা। এ ছাড়া, কিশোর-কিশোরীরা আর যেসব পথ বেছে নেয় সেগুলো হলো- ইন্সট্যান্ট মেসেজ বা ভিডিও মুছে ফেলা, অনলাইন কর্মকাণ্ড নিয়ে বিস্তারিত কথা বলার সময় মিথ্যা বলা কিংবা এ বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়া এবং মা-বাবা সাধারণতঃ যে কম্পিউটার ব্যবহার করেন না সে কম্পিউটার ব্যবহার করা। স্মার্টফোনের মতো ইন্টারনেট ব্যবহার উপযোগী মোবাইল ফোন ব্যবহার করেও কিশোর-কিশোরীরা তাদের মা-বাবাকে আজকাল ফাঁকি দিচ্ছে -এমন তথ্যও দিয়েছে ম্যাকফি।

ঢাকা ২৬ মে (ওমেন আই)এলএইচ//

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close