আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
কিশোরীর কথাস্লাইড

পশু কোরবানির মাধ্যমে নিজেদের ভেতরের পশুত্ব বিসর্জন দিতে হবে : হোসনে আরা বীনা

ওমেনআই ডেস্ক : ঈদুল আজহা নারায়ণগঞ্জেই এবার উদযাপন করবেন বলে জানান নারায়নগঞ্জ সদর উপজেলা ইউএনও হোসনে আরা বীনা। তিনি বলেন, ঈদের কোনো ছুটি না থাকায় নারায়ণগঞ্জ ছেড়ে অন্য কোথাও যাওয়া হচ্ছে না। তবে এবারের ঈদটা আমার জন্য অন্যকরম। আব্বু-আম্মুও এবার হজ্বে গেছে। আর আমার হাজবেন্ডও বাবা-মায়ের সাথে ঈদ কাটাতে ফরিদপুর যাবে। অতএব কেউই থাকবেনা। তাই এবার আমার ঈদ একাই কাটাতে হবে।

ঈদের সারটি দিন ব্যস্ততায় কাটবে জানিয়ে তিনি বলেন, সকাল থেকেই ব্যস্ততা শুরু হবে। এর মধ্যে নামাজ শেষে কোয়াটারে কোরবানির আয়োজন থাকবে। তারপর দুপুর থেকে আত্মীয়-স্বজনদের সাথে দেখা সাক্ষাত পর্ব চলবে বিকেল পর্যন্ত। তবে বিকেলের দিকে ডিসি স্যারে বাংলোতে প্রশাসনের সকল কর্মকর্তাদের দাওয়াত রয়েছে, সেখানে যাব। এভাবেই  কেটে যাবে ঈদের সারাটা দিন।

ছোটবেলার ঈদ উদযাপনের স্মৃতিচারণ করে হোসনে আরা বীনা বলেন, ‘ছোটবেলায় কখনও এক জায়গায় একাধিকবার ঈদ উদযাপন করা হয়নি। বাবার সরকারী চাকরী হওয়ার সুবাদে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জায়গায় ঈদ কাটাতে হত। কখনও ছুটি পেলে গ্রামেও যাওয়া হত। তবে খুব  কম সময়ই এমন সুযোগ আসতো।’ ঈদুল আজহায় ছোটবেলার একটি স্মৃতি মনে দাগ কেটে আছে। তখন আমরা রাঙামাটিতে থাকি। কোরবানির জন্য ঈদের বেশ কয়েকদিন আগে বাবা একটি ছাগল কিনে আনে। আমরা তিন ভাইবোন মিলে ছাগলটিকে খুব যত্ন করতাম। পাহাড়ে ঘুরতে নিয়ে যেতাম। ঘাস,পাতা-লতা কুড়িয়ে খাওয়াতাম। দিন যতোই যাচ্ছিল মায়া ততোই বাড়ছিলো। ঈদ ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে মনটাও খারাপ হয়ে যাচ্ছিল। ঈদের দিন যখন ছাগলটাকে কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছিল তখন ছাগলটির চিৎকার করছিলো। যা আজও আমার কানে এসে বাজে। এ ঘটনাটা আমার মনে এমনভাবে দাগ কেটেছে যে আমি সেদিনের পর থেকে আজও ছাগলের মাংস খাইনা।

ঈদুল আজহার তাৎপর্য সম্পর্কে  ইউএনও হোসনে আরা বীনা বলেন, ঈদুল আজহার মূল উদ্দেশ্যে হল পশু কোরবানির মধ্যে দিয়ে নিজেদের মনের সকল হিংসা-বিদ্বেষ, লোভ-লালসা ও সকল মন্দ চিন্তার বিসর্জন দেয়া। তাই আমাদেরও উচিত এ কোরবানি ঈদে পশু কোরবানির মধ্যে দিয়ে নিজেদের ভেতরের পশুত্ব দূর করতে হবে।

Tags

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close