আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
আন্তর্জাতিক

‘ফ্যাসিস্ট’ বলায় ছাত্রী গ্রেফতার

ওমেনআই ডেস্ক: ভারতের বিজেপি সরকারকে ‘ফ্যাসিস্ট’ বলায় তামিলনাড়ু রাজ্যে এক ছাত্রীকে গ্রেফতার করে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকা।

আটক সোফিয়া লুই বিজেপি নেতা তামিলসাই সুন্দররাজনকে দেখে এই মন্তব্য করার পর ওই নেতা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন।

সোফিয়াকে মঙ্গলবার জামিনে মুক্তি দেয়া হয়েছে।

২৮ বছর বয়সী সোফিয়া কানাডায় পড়াশোনা করছেন। একটি বিমান সফরকালে তামিলনাড়ুর বিজেপি সভাপতি তামিলসাই সুন্দররাজনের সামনে ‘ফ্যাসিস্ট বিজেপি সরকার নিপাত যাক’ শ্লোগান দেন তিনি। সুন্দররাজনের অভিযোগের ভিত্তিতেই ওই ছাত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

লুই সোফিয়া কানাডা যাওয়ার পথে এ ঘটনা ঘটে। চেন্নাই থেকে তুতিকোরিনগামী ইন্ডিগো বিমানে ওই ছাত্রীর সঙ্গে তার বাবা-মাও ছিলেন। তুতিকোরিন বিমানবন্দরে বিমান অবতরণের পরে সোফিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিমানবন্দর পুলিশের কাছে ওই ছাত্রীর নামে অভিযোগ দায়ের করেন সুন্দররাজন। তারপরেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।
সোফিয়াকে ১৫ দিনের জন্য বিচারবিভাগীয় হেফাজতে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার পক্ষের আইনজীবী অতিস্যকুমার। পেট ব্যথার অভিযোগ করায় সোফিয়াকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এর আগে এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, তামিলসাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে সোফিয়ার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০৫ ধারা (প্রকাশ্যে দুষ্কৃতিমূলক কাজ), ২৯০ (প্রকাশ্যে অপকর্ম) ধারার সঙ্গে তামিলনাড়ু সিটি পুলিশ অ্যাক্টের ৭৬ নং ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

সোফিয়ার বাবা, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চিকিৎসক ডক্টর এ এ স্বামী জানিয়েছেন, তুতিকোরিনে বিমান অবতরণের পরে এ ঘটনা ঘটে।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা তুতিকোরিনে নামার পরে সোফিয়া বিজেপি নেতাকে দেখে বলে ওঠে, ‘ফ্যাসিস্ট বিজেপি সরকার নিপাত যাক।’ এর বেশি একটি কথাও ও বলেনি। কিন্তু আমরা যখন টার্মিনালে পৌঁছাই তখন তামিলসাই এবং তাকে নিতে আসা জনা দশেক লোক আমাদের ঘিরে ধরে, আমার মেয়ের উদ্দেশে কটূক্তি করতে থাকে এবং অশালীন কথা বলতে থাকে। ওকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়। শেষ পর্যন্ত বিমানবন্দর পুলিশ আমাদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসে এবং আমাদের উদ্ধার করে একটি ঘরে নিয়ে যায়।’

৬৫ বছরের বৃদ্ধ জানিয়েছেন, ‘এ ঘটনার পর তামিলসাই আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। পরে আমরা পুলিশের কাছ থেকে জানতে পারি যে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ওরা আমাদের থানায় যেতে বলেন, এবং প্রতিশ্রুতি দেন যে সঙ্গে সঙ্গে জামিন দিয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু উঁচু মহল থেকে বেশ কিছু ফোন আসে, এখন ওরা আমার মেয়েকে জেলে ঢুকিয়ে দিতে চাইছে।’

ডক্টর সামি জানিয়েছেন, সোমবার রাতেও তামিলসাই এবং তার বিজেপি সঙ্গীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে বেগ পেতে হয়েছে তাকে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে তামিলসাই জানিয়েছেন, ‘অল্পবয়সী এবং নিরীহ দেখতে একটি মেয়ে’ বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে শ্লোগান তুলেছিল। তিনি বলেন, ‘আমি তিন নম্বর সিটে বসেছিলাম, ও ছিল ৮ নম্বর সিটে। বিমান নামার পরে আমি যখন বেরিয়ে আসছি তখন মেয়েটি আমায় দেখে ‘বিজেপি নিপাত যাক’ বলে চিৎকার করে ওঠে। আমি ফিরে তাকাতেই ফের একই কথা বলে ওঠে মেয়েটি। আমি প্রথমে ভেবেছিলাম উপেক্ষা করব। কিন্তু আমি বিমান থেকে বেরোনোর সময়ে মেয়েটি বারবার একই কথা বলে যাচ্ছিল। আমার সম্পর্কে কিছু মন্তব্যও করছিল মেয়েটি।’

তামিলসাইয়ের বক্তব্য, যে ফ্যাসিস্ট শব্দটা ব্যবহার করছে সে নিরীহ হতে পারে না। তিনি বলেছেন, ‘কোনও নিরীহ মেয়ে এই শব্দ উচ্চারণ করতে পারে না। মেয়েটা বলেছিল ওর মতপ্রকাশের স্বাধীনতা আছে। মেয়েটা চিৎকার করে হাত মুঠো করে তুলে শ্লোগান দিচ্ছিল আর ‘ফ্যাসিস্ট’ বলছিল। আমার মনে হয়েছে আমি একজন সন্ত্রাসবাদীকে উপেক্ষা করতে পারি না, তাই আমি অভিযোগ দায়ের করেছি।’

তার লোকজন সোফিয়াকে যে হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছে সে নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তামিলসাই বলেন, ‘কথা কাটাকাটির সময়ে তারাও মেয়েটিকে প্রশ্ন করে। আমার সরকারের নিন্দা করায় আমি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম। একটা সময়ে মেয়েটা বলে, আমার বিরুদ্ধে নয়, তার শ্লোগান বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে। কিন্তু বিমানে কি ও শুধু আমাকেই টার্গেট করছিল না? আমি ওর সঙ্গে কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ি শেষপর্যন্ত পুলিশ এসে আমাকে শান্ত করে। আমি ওদের বলে দিয়েছি, আমার সরকারের বিরুদ্ধে এভাবে প্রশ্ন তুললে আমি এড়িয়ে যেতে পারব না।’

তামিলসাই জানিয়েছেন, ‘সন্ধেবেলা আমি খবর পাই, স্টারলাইট বিক্ষোভের পিছনে যারা ছিল তারা মেয়েটির সমর্থনে থানায় গিয়েছিল। আমার কাছে খবর আছে, কানাডায় এই মেয়েটি কিছু গোষ্ঠীর সঙ্গে যুক্ত।’

সোফিয়ার বাবা তার মেয়ের এ ধরনের মন্তব্য নিয়ে চিন্তিত নন। তিনি বলেছেন, ‘একটা বিপজ্জনক শিল্প যখন এলাকাকে দূষিত করছে তখন মানুষ তার প্রতিবাদ করবেই। তাকে যে নামেই ডাকা হোক, সে নিয়ে আমি ভাবি না। আগেও আমার মেয়ে স্টারলাইট ইস্যুতে লেখালিখি করেছে, কারণ ও লেখায় বিশ্বাস করে। ও নিজে অঙ্ক ও পদার্থবিদ্যা নিয়ে গবেষণা করলেও লেখালিখি ওর শখ।

আপলোডেড বাই: অরণ্য সৌরভ

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close