আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
সারাদেশ

বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো শিশু ইতি

ওমেনআই ডেস্ক: রাজশাহীর তানোর উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো এক শিশুর বাল্যবিয়ে। এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হলেও বাল্যবিয়ে না দেয়ার শর্তে মুচলেকা দিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

পঞ্চম শ্রেণীর পর্যন্ত লেখাপাড়া করে আর স্কুলে যাওয়া হয়নি ইতির (১৪)। পারিবারিক কাজ করেই দিন কাটে তার। শিশু বয়সেই বিয়ে দেবার জন্য তৎপর হয়ে উঠেন তার বাবা-মা। বিয়েও ঠিক হয়। গেলো দুই দিন থেকে শুরু হয় বিয়ের সকল আয়োজন। শুক্রবার বিয়ের মূল আনুষ্ঠানিকতা। বিয়ে উপলক্ষে ভোর থেকেই স্বজনরাও আসতে থাকেন ঘরে। দুপুর নাগাদ বরও আসবে। এই অবস্থায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলিশ পাঠিয়ে এ বাল্যবিয়ে বন্ধ করান।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার ইতির বিয়ের সকল আয়োজন করেছিলেন তার পিতা আব্দুল হামিদ। বর জেলার পুঠিয়া উপজেলার। দুপুর নাগাদ বর চলে আসার কথা। কিন্তু বেলা ১২ টার দিকে ইতির বাড়িতে তানোর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার প্রতিনিধিসহ পুলিশ হাজির হন। এ অবস্থায় ইতির পিতা আব্দুল হামিদ ও মা শিরিনা বিবি বিয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান।

এ সময় বাল্য বিয়ে দেয়ার অপরাধে ইতির মামা সোহেল রানা, খালা পারভীন বিবি ও জোসনা বিবিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। অন্যদিকে এই খবর পেয়ে বরের পরিবার বিয়ে বাড়িতে আসেননি। বিকাল ৪টার দিকে ইতির মা শিরিনা বিবি অঙ্গিকার নামা দিয়ে আটককৃক তিনজনকে ছাড়িয়ে নিয়ে যান। অঙ্গিকার নামায় ইতির বাল্যবিয়ে দিবে না মর্মে উল্লেখ করেন ইতির বাবা-মা।

তানোর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা চৌধুরী মোহাম্মদ গোলাম রাব্বী বলেন, বিষয়টি ফোনে শোনার পর পুলিশসহ প্রতিনিধি ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করি এবং তিনজনকে আটক করা হয়। আটককৃতদের মুচলেকা দেয়ার শর্তে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। মেয়েটি পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করে আর স্কুলে যায়নি জানান তিনি।

সূত্র/আপলোডেড বাই: পরিবর্তন/অরণ্য সৌরভ

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close