আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অর্থনীতি

২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেট পাশ

sওমেন আই: ২০১৪-১৫ অর্থবছরের জন্য ২ লাখ ৫০ হাজার ৫০৬ কোটি টাকার বাজেট পাস হয়েছে।রোববার দুপুরে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ১০ম জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশনে এ বাজেট পাস হয়।৫ জুন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ৮ম বাজেট ও মহাজোট সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম বাজেট উত্থাপন করেন।এ বাজেটে সর্বোচ্চ অর্থ বিভাগে ১৮৫ কোটি ৬৬ লাখ ৮ হাজার ২৫৯ টাকা এবং সর্বনিম্ন রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৯শ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম বাজেটে মোট তিন লাখ ৮২ হাজার ৩৪০ কোটি এক লাখ ২১ হাজার টাকা ব্যয় নির্দিষ্টকরণ বিল-২০১৪ কণ্ঠভোটে পাস হয়। এর মধ্যে সংসদ সদস্যদের ভোটে গৃহীত অর্থের পরিমাণ দুই লাখ ৩০ হাজার ৪১৭ কোটি ১০ লাখ ৯৪ হাজার টাকা এবং সংযুক্ত তহবিলের ওপর দায় এক লাখ ৫১ হাজার ৯২২ কোটি ৯০ লাখ ২৭ হাজার টাকা।সর্বোচ্চ ৪৪ হাজার ৫১৭ কোটি ৫১ হাজার ২০ লাখ টাকা বরাদ্দ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে অর্থ বিভাগকে এবং সর্বনিম্ন বরাদ্দ পেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট-১৩ কোটি এক লাখ টাকা।এই ব্যয় অনুমোদনের জন্য বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীরা জাতীয় সংসদে মোট ৫৬টি মঞ্জুরি দাবি উত্থাপন করেন। এসব মঞ্জুরি দাবির বিপরীতে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি ও স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের মধ্যে ছয় সংসদ সদস্য মোট ২৪৯টি ছাঁটাই প্রস্তাব আনেন।ছাঁটাই প্রস্তাব আনা সংসদ সদস্যরা হলেন হাজী মো. সেলিম, মো. শওকত চৌধুরী, মো. রুস্তম আলী ফরাজী, তাহজীব আলম সিদ্দিকী, মোহাম্মদ নোমান এবং নূরুল ইসলাম মিলন।এসব প্রস্তাবের মধ্যে নীতি অনুমোদন ছাঁটাই, মিতব্যয় ছাঁটাই ও প্রতীকী ছাঁটাই রয়েছে। এসব ছাঁটাই প্রস্তাব নিষ্পত্তি শেষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত দুপুর ১টা ১৪ মিনিটে নির্দিষ্টকরণ বিল ২০১৪ পাসের জন্য সংসদে উত্থাপন করেন।বিলের দফাগুলো সংসদে গৃহীত হওয়ার পর দুপুর ১টা ১৬ মিনিটে নির্দিষ্টকরণ বিল কণ্ঠভোটে সংসদে পাস হয়।এই নির্দিষ্টকরণ বিলই ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেট। যদিও নির্দিষ্টকরণ বিলে ৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৪০ কোটি এক লাখ ২১ হাজার টাকা ব্যয়ের অনুমোদন করেছে সংসদ।সংসদ কর্তৃক গৃহীত ৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৪০ কোটি এক লাখ ২১ হাজার টাকার মধ্যে সংযুক্ত তহবিলের ওপর দায় হচ্ছে আয় এক লাখ ৫১ হাজার ৯২২ কোটি ২৭ হাজার টাকা, যা সংসদে অনুমোদনের কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। রাষ্ট্রপতি তার ক্ষমতা বলে সরাসরি এই অর্থ ব্যয়ের অনুমোদন দিতে পারেন। অবশিষ্ট দুই লাখ ৩০ হাজার ৪১৭ কোটি ১০ লাখ ৯৪ হাজার টাকা হচ্ছে সংসদে ভোটে গৃহীত ব্যয়। এই অর্থই ৫৬টি মঞ্জুরি দাবির মধ্য দিয়ে সংসদে গৃহীত হয়েছে।সরকার ও বিরোধী দলের হুইপের মধ্যে সমঝোতা অনুযায়ী মোট ৫৬টি মঞ্জুরি দাবির মধ্যে সাতটি মঞ্জুরি দাবি আলোচনার সিদ্ধান্ত হয়। এ দাবিগুলো হলো জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, আইন ও বিচার বিভাগ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পররাষ্ট্র ও যোগাযোগ। এসব মঞ্জুরি দাবির ওপর বিরোধী দল ও স্বতন্ত্র সদস্যরা তাদের আনীত ছাঁটাইয়ের প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। যদিও আলোচনা শেষে এ ছাঁটাই প্রস্তাবগুলো কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।সংযুক্ত তহবিলের দায়ের মধ্যে ট্রেজারি বিলের দায় পরিশোধ, হাইকোর্টে বিচারপতি ও মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রককের বেতন ইত্যাদি দায় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ঢাকা ২৯ জুন (ওমেন আই) // এলএইচ//

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close