আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অর্থনীতি

১৫ কোটি ডলারে নিরাপত্তা

garmentsওমেন আই:রানা প্লাজা ধসের পর গঠিত দ্য ইউএস এলায়েন্স ফর বাংলাদেশি ওয়ার্কার সেফটি তাদের প্রথম বার্ষিক প্রতিবেদনে বলেছে,
বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোর আগুন ও স্থাপনাবিষয়ক নিরাপত্তার মান একটি পর্যায়ে নিয়ে আসতে ১৫ কোটি মার্কিন ডলার বা এক হাজার ২০০ কোটি টাকা খরচ হবে। এ জন্য সময় লাগবে দেড় বছর। নিরাপত্তার এই মানদণ্ড স্থির করেছে ওয়ালমার্ট ও গ্যাপের জনপ্রিয় মার্কিন ব্র্যান্ডগুলো। সাভারে রানা প্লাজা ধসের ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা এক হাজার ১০০ ছাড়িয়ে যায়। আহত ও চিরতরে পঙ্গু হয়ে যান আরও অনেকে। দ্য গার্ডিয়ান বরাতে জানা যায়, এলায়েন্স সম্প্রতি ৫৮৭টি কারখানা পরিদর্শন শেষে এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে। মূলত এই কারখানাগুলোই উত্তর আমেরিকার জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠানগুলোয় পোশাক রপ্তানি করে থাকে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ভবনের কাঠামোয় ত্রুটি থাকায় ইতিমধ্যে বাংলাদেশে ১০টি কারখানা পুরোপুরি বা আংশিকভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এলায়েন্স বছর খানেক আগে অনুমোদন পাওয়া ৮০০ কারখানার মধ্যে ৬০০টি পরিদর্শন করে। সে সময় ওই ১০টি কারখানার কাঠামোয় ত্রুটি পাওয়া যায়।

এলায়েন্সের জ্যেষ্ঠ পরামর্শক ইয়ান স্পলডিং বলছেন, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক কারখানায় মান নিয়ন্ত্রণের জন্য কারখানায় ট্রেড ইউনিয়নের অধিকার দিতে হবে। এতে করে শ্রমিকদের অধিকার রক্ষিত হবে এবং মালিকপক্ষকে অন্তত কোনো কোনো ক্ষেত্রে বাধার মুখে পড়তে হতে পারে। এপ্রিল মাসের তথ্যে দেখা যায়, বাংলাদেশের পাঁচ হাজারের মধ্যে তিন শত’র কম পোশাক কারখানায় ট্রেড ইউনিয়নের অধিকার আছে।

মানুষ এখন বুঝতে পারছে, শুধু যেখান থেকে খুশি পোশাক কিনলেই চলবে না।’ রানা প্লাজা ধসের পর বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানির পরিমাণ কমেনি, কিন্তু সীমাবদ্ধ হয়েছে ক্রেতার সংখ্যা। এটাই ভাবিয়ে তুলেছে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানিকারকদের। তাঁদের আশঙ্কা, রানা প্লাজা ধসের পর বাংলাদেশের পোশাক খাতের ওপর যে নজরদারি তাতে করে প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় তাঁরা পিছিয়ে পড়তে পারেন। এলায়েন্সের পাশাপাশি প্রাইমার্ক, মার্কস এন্ড স্পেন্সারসহ ১৭০টিরও বেশি ক্রেতা প্রতিষ্ঠান এক হাজার ৫০০টি কারখানা পরিদর্শন করেছে। যুক্তরাজ্য ও নেদারল্যান্ডের অর্থায়নে বাংলাদেশ সরকারও হাজার খানেকের বেশি কারখানা পরিদর্শন করেছে।

ঢাকা, ২৭ জুলাই (ওমেন আই)//এলএইচ/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close