আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
দুর্ঘটনা

বোনের বিয়েতে আসবেন কি রোহান ইউসুফ আরেফিন

ওমেনআই ডেস্কঃ তানজিল হাসান রোহান, বয়স একুশ। এ যুবকের স্বপ্ন ছিল আকাশচুম্বী বড় কোনো করপোরেট প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী হওয়া। সেভাবে নিজেকে প্রস্তুতও করছিলেন। ‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেল শেষ করে বিবিএ করতে ভর্তি হন নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, রোহানের সেই স্বপ্ন ভেঙে গেছে দ্বিতীয় সেমিস্টারেই।

চকবাজারের চুড়িহাট্টার ভয়াবহ অগ্নিকা-ের পর থেকে নিখোঁজ এই মেধাবী শিক্ষার্থী। ঘটনার পর থেকেই পাগলপ্রায় বাবা-মা তাকে খুঁজছেন এদিক-ওদিক। রোহানের বাবার নাম মো. হাসান খান, মা রুবিনা ইয়াসমিন। পুরান ঢাকার আগামসি লেনে থাকলেও তাদের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার শেখদিতে। বঙ্গবাজারে হাসান খানের কাপড়ের ব্যবসা।

গতকাল শুক্রবার ঢাকা মেডিক্যালে মর্গের সামনে তিনি মিডিয়া কে জানান, দুর্ঘটনার রাতে রোহান তার এক বন্ধুর বাসা থেকে ফিরছিলেন। তার বাইকের পেছনে ছিলেন বন্ধু আরাফাত। আগুনের লেলিহান শিখা থেকে তিনি নিজেকে বাঁচাতে পারেননি। তবে চার বন্ধু দুই বাইকে থাকলেও লাবিব আর মেহেদী জ্যাম ঠেলে আগেই বেরিয়ে যাওয়ায় তাদের কিছু হয়নি।

এদিকে আরাফাতের দগ্ধ মরদেহ স্বজনরা চিহ্নিত করলেও খোঁজ মিলছে না রোহানের। তার ভাগ্যাকাশে কী ঘটেছে, তাও নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছেন না। ছেলের সন্ধানে হাসান মর্গ আর দুর্ঘটনাস্থলে দৌড়াদৌড়ি করছেন। খোঁজ নিচ্ছেন অন্যান্য হাসপাতালেও। কিন্তু কোথাও আদরের সন্তানের সংবাদ মিলছে না। হাসান খান বলেন, ‘আগামী ১০ মার্চ আমার মেয়ে রিয়ার বিয়ে।

তাই বড় ভাই হিসেবে বোনের বিয়ের সব কার্যক্রম রোহানই করছিল। কিন্তু কী থেকে কী হয়ে গেল!’ তবে চকবাজার ট্র্যাজেডিতে রোহানের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা জানতে উদগ্রীব স্বজনরা। বাবা-মায়ের চোখে এখন আর পানি নেই। গত দুদিন কাঁদতে কাঁদতে মা রুবিনা বাকরুদ্ধ। ঠিকমতো উঠে দাঁড়াতেও পারছেন না। ছেলের একটি ছবি বুকে জড়িয়ে ধরেই বসে থাকেন আপন মনে। মায়ের বিশ্বাস, তার আদরের রোহান ফিরে আসবে!

আপলোডেড বাইঃ নুশরাত সামিয়া

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close