আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
সারাদেশ

টিফিন খেয়ে শতাধিক বালিকা অসুস্থ

natorনাটোর প্রতিনিধি : নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দেয়া টিফিনের কেক খেয়ে শতাধিক বালিকা অসুস্থ হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে ৩৫ জনকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে চিকিৎসকেরা। এ সময় শত শত অভিভাবক স্কুলে ভীড় করলে বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

নাটোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) কাজী আতিয়ুর রহমান ও পুলিশ সুপার বাসুদেব বণিক তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে অভিভাবকদের শান্ত করেন।

সরেজমিন স্কুল ও হাসপাতালে গিয়ে জানা যায়, অন্য সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মতো নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রভাতী শাখার ক্লাস শেষে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে টিফিন হিসেবে ছাত্রীদের কেক খেতে দেয়া হয়। এই কেক খেয়ে শতাধিক ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। এদের জিহ্বা মুখ নীল হয়ে যায় এবং পেট ব্যথা, বমি ও পাতলা পায়খানা শুরু হয়।

কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহিদুল ইসলাম জাহিদ জানান, ফুড পয়জনিং থেকে এমনটা হতে পারে। খুব বেশি বমি বা পাতলা পায়খানা না হলে এতে আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। ঘটনার পর নাটোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ্র ও সহকারী প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ্রকে পাওয়া যায়নি।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে কাজী আতিয়ুর রহমান, পুলিশ সুপার বাসুদেব বণিক ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান মিজান জানান, যে কেক খেয়ে এসব ছাত্রীরা অসুস্থ হয়েছে সেই কেকের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগে পাঠানো হচ্ছে। তদন্ত করে তারা সকল অব্যবস্থাপনার বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে অভিভাবকদের শান্ত করেন।

বিক্ষুদ্ধ অভিভাবকরা এ সময় জানান, দীর্ঘ টানা ১৫ বছর থেকে সহকারী প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ্র (মাঝে চার মাস বাদে) এই স্কুলে থাকায় তার মাধ্যমেই নানা অনিয়ম হচ্ছে। ছাত্রীদের নিম্নমানের নাস্তা সরবরাহ করায় এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। যে সব শিক্ষকরা দীর্ঘ সময় থেকে এই স্কুলে কর্মরত আছেন তাদের সকলকে নাটোরের বাহিরে অন্য জেলায় পাঠানোর জন্যও অভিভাবক ফোরামের সভাপতি আলী আকমল বাপ্পী দাবি জানিয়েছেন।

ঢাকা, ২৭ অাগস্ট (ওমেনঅাই)/এলএইচ/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close