আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
রাজনীতি

‘দেশের জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে পরিণত করতে হবে’

sheikha-hasina-pm_7716ওমেনআই:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকারের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা এবং সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যগুলো (এমপিজি) অর্জনকে অগ্রাধিকার দেয়ায় দারিদ্র্যের হার কমে ২৫ শতাংশে নেমে এসেছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে রাজধানীর সোনারগাঁ হোটেলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের ৩২তম সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে পরিণত করতে হবে। সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা নিম্নআয়ের জনগণের খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছি। ফলে দারিদ্র্যের হার ২০০৫ সালের ৪০ শতাংশ থেকে ২৫ শতাংশে নেমে এসেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ২০০৯ সালে সরকার গঠন করার পরই স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নকে অগ্রাধিকার দেই। জনগণের চিকিৎসা সেবা পাওয়ার পথ সুগম করি। যুগোপযোগী স্বাস্থ্যনীতি প্রণয়ন করি।

তিনি বলেন, ১৩ হাজারের বেশি কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করা হয়েছে। এসব ক্লিনিকে প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তাদেরকে ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া হয়েছে। রোগীদের বিনামূল্যে ওষুধ দেয়া হচ্ছে। আমরা ই-হেলথ ও টেলিমেডিসিন সেবা চালু করেছি।

তিনি আরো বলেন, আমরা দেশব্যাপী একটি ব্যাপকভিত্তিক স্বাস্থ্যসেবা নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছি। স্বাস্থ্যকর্মী, প্রাইমারি, সেকেন্ডারি, টারসিয়ারি, বিশেষায়িত হাসপাতাল এবং উভয়মুখী রেফারেল পদ্ধতি প্রবর্তন করেছি। যা বিশ্বে অনন্য। এজন্য বাংলাদেশ ২০১১ সালে সাউথ সাউথ অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশের সব পর্যায়ের হাসপাতালে বেডের সংখ্যা বাড়িয়েছি। আধুনিক যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়েছে। নতুন নতুন জেনারেল হাসপাতাল ও বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, সরকার নতুন নতুন মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ, হেলথ টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, নার্সিং কলেজ এবং নার্সিং ট্রেনিং ইনস্টিটিউট স্থাপন করেছে। ডাক্তার, নার্সসহ এ খাতের প্রতিটি বিভাগেই জনবল বাড়ানো হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডব্লিউএইচওর মহাপরিচালক ড. মার্গারেট চ্যান। ৪ দিনব্যাপী এ সম্মেলনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের ১১টি সদস্য রাষ্ট্র বাংলাদেশ, ভুটান, দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড ও পূর্ব তিমুর অংশ নিচ্ছে।

ঢাকা, ৯ সেপ্টেম্বর (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close