আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
স্বাস্থ্য

সুস্থতায় গাজর

gajor wmn 30.10ওমেনঅাই:রঙ্গিন ফলমূলে প্রচুর ভিটামিন ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর উপাদান একটু বেশী থাকে। কমলা রঙের গাজরও এর ব্যতিক্রম নয়। এই ফলটি শুধু ভিটামিন এ’তেই সমৃদ্ধ নয়, এতে আছে নানাবিধ উপকারী উপাদান। এটি সুন্দর ত্বক থেকে শুরু করে ক্যান্সারের সুরক্ষায়ও বড় ভূমিকা রাখে। প্রতিদিন একটি গাজর থেকে কি কি উপকার পাওয়া যাবে তা আজ দেয়া হলো :

# গাজর খেলে বৃদ্ধি পায় দৃষ্টিশক্তি। এতে আছে বিটা ক্যারোটিন যা আমাদের লিভারে গিয়ে ভিটামিন এ’তে রূপান্তরিত হয়। এটি চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে রাতের বেলায় অন্ধকারেও চোখে ভালো দেখার জন্য দরকারি এক ধরনের বেগুনি পিগমেন্টের সংখ্যা বাড়িয়ে দিয়ে দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে

# গাজর খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। এতে আছে ফ্যালকেরিনল বং ফ্যালকেরিনডায়ল যা আমাদের শরীরে এন্টিকান্সার উপাদানগুলোকে পূর্ণ করে। তাই গাজর খেলে ব্রেস্ট, কোলন ও ফুসফুসের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি অনেকটাই কমে যায়।

# গাজর এন্টি-এজিং উপাদান হিসেবেও কাজ করে। এতে যে বিটা ক্যারোটিন আছে তা আমাদের শরীরের ভেতরে গিয়ে এন্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। এতে আমাদের শরীরের ক্ষয়প্রাপ্ত কোষগুলো ঠিকঠাক থাকে।

# সুন্দর ত্বকের জন্যও গাজর উপকারী। এটা ত্বককে ভেতর থেকে সুন্দর করে তুলতে সাহায্য করবে। এর ভিটামিন ‘এ’ ও এন্টিওক্সিডেন্ট ত্বকের রোদে পোড়াভাব দূর করে। সেই সঙ্গে ভিটামিন এ ত্বকের অযাচিত ভাঁজ, কালো দাগ, ব্রন, ত্বকের রঙের অসামাঞ্জস্যতা দূর করে সুন্দর হয়ে উঠতে সাহায্য করবে।

# গাজর একটি ভালো এন্টিসেপ্টিক হিসেবেও কাজ করে। এটি শরীরে কোনো ক্ষত হলে তা ইনফেকশন হওয়া থেকে রক্ষা করে। কোথাও কেটে গেলে বা পুড়ে গেলে সেখানে কুচি করা গাজর বা সিদ্ধ করা গাজরের পেস্ট লাগিয়ে দিলে ইনফেকশন হওয়ার আশঙ্কা দূর হয়।

# গাজর বাইরে থেকেও ত্বকের অনেক উপকার করে। ফেশিয়ালের উপাদান হিসেবেও এটিকে ব্যবহার করতে পারেন।

# হৃৎপিণ্ডের নানা অসুখে এটি খুব ভালো কাজ করে। এর ক্যারোটিনয়েডগুলো হৃৎপিণ্ডের নানা অসুখের ওষুধস্বরূপ কাজ করে।

# সুন্দর ও সুস্থ, সবল দাঁতের জন্য গাজরের জুড়ি মেলা ভার। গাজর দাঁত ও মুখের ভেতর পরিষ্কার রাখে। এছাড়াও গাজরের মিনারেলগুলো দাঁত মজবুত রাখতে সাহায্য করে৷

# হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত এক সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে যারা সপ্তাহে ৬টির বেশি গাজর খান বা খাচ্ছেন তাদের স্ট্রোকের ঝুঁকি যারা এর থেকে কম পরিমাণে কম বা একটি গাজর খাচ্ছেন তাদের তুলনায় অনেক কম। তাই স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে খাবারের তালিকায় যুক্ত করতে পারেন গাজর।

এক কথায় গাজরের উপকারিতা অনেক। তাই খাদ্য তালিকায় নিয়মিত গাজর রেখে সুস্থ থাকতে পারেন। আর যারা খান না, তারা খাওযার অব্যাস করুন।

ঢাকা, ৩০ অক্টোবর (ওমেনআই) /এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close