আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
জাতীয়

খ্যাতিমান ফটো সাংবাদিক আফতাব আহমেদ খুন

ওমেন আই :
একুশে পদকপ্রাপ্ত ফটো সাংবাদিক আফতাব আহমেদ (৬৯) বুধবার ভোররাতে তার বাসায় খুন হয়েছেন। হাত-পা বাঁধা অবস্থায় রামপুরা থানার পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করেছে।

রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) নাছিম আহমেদ জানান, আফতাব আহমেদ বাসায় একা থাকতেন। এদিন সকালে তার কাজের বুয়া বাসার দরজা খোলা দেখতে পান। পরে তিনি ভেতরে গিয়ে আফতাব আহমেদের কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে।

তিনি আরো জানান, আফতাব আহমেদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হবে।

রামপুরা থানার এসআই মঞ্জুরুল ইসলাম প্রথমে তার লাশ উদ্ধার করেন। তিনি জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় খবর পেয়ে তারা ওই বাসাটিতে আসেন। পুরো লাশটি ছোট ছোট কাপড়ের টুকরা দিয়ে প্যাঁচানো অবস্থায় দেখতে পান তিনি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

আফতাব আহমেদের মেয়ের জামাই স্টেট ইউনিভার্সিটির ডেপুটি রেজিস্ট্রার ফারুক আহমেদ এটিএন টাইমসকে জানিয়েছেন, পূর্ব রামপুরার ওয়াপদা রোডের ওই বাসায় তিনি একাই থাকতেন। সকালে গৃহকর্মী গিয়ে দরজা ধাক্কা দেন। কিন্তু দরজা না খোলায় পরে পুলিশ এসে দরজা ভেঙে দেখেন হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মৃত পড়ে আছেন তিনি।

আফতাব আহমদ ১৯৩৫ সালে রংপুর জেলার গঙ্গাচড়া থানার মহিপুরে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬২ সালে দৈনিক ইত্তেফাকে ফটোগ্রাফার হিসেবে যোগ দেন তিনি। ৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বরে হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণ ছাড়াও ৭৫-এর আগস্টে শেখ মুজিবের হত্যাকাণ্ড, ৭ নভেম্বরে সিপাহী জনতার অভ্যুত্থান এবং দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বহু অমূল্য ছবি তার ক্যামেরায় ধরা পড়েছে।

তবে ১৯৭৪ সালে দুর্ভিক্ষপীড়িত চিলমারি এলাকায় বাসন্তী ও দুর্গতি নামের দুই যুবতীর অভাবের তাড়নার সম্ভ্রব রক্ষা করতে জাল জড়ানো ছবির কারণে অনেক বিতর্কের জন্ম দেন তিনি। এ ছবির জন্যই ২০০৬ সালে একুশে পদক পান।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close