আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
নারী সংগঠন

এমডিজি অর্জনে নারীদের বেশি অবদান

chumkiওমেনআই: মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন, ‘বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নারীদের এগিয়ে আসাই প্রমাণ করে বাংলাদেশ আর পিছিয়ে নেই।’

সম্প্রতি রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে দ্য হাঙ্গার প্রজেক্ট- বাংলাদেশের নারী নেতৃত্ব বিকাশ কর্মসূচির আওতাধীন বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের পঞ্চম জাতীয় সম্মেলনে এ কথা বলেন চুমকি।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের বর্তমান জিডিপি ছয় শতাংশের উপরে। উত্তরাঞ্চলে মঙ্গা নেই। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যু হ্রাসসহ এমডিজি অর্জনে আমাদের সাফল্য ঈর্ষণীয়।এসব ক্ষেত্রে নারীদের বড় অবদান।’

‘নারীদের যেখানেই সুযোগ দেয়া হচ্ছে সেখানেই তারা যোগ্যতার প্রমাণ করছে। দেশের রাজনীতিসহ সবক্ষেত্রে নারীরা আজ প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু একটি গোষ্ঠী নারীদের উন্নয়ন চায় না। তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

দেশের সহস্রাধিক বলিষ্ঠ নারীনেত্রীর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি রাশেদা আখ্তার।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- দ্য হাঙ্গার প্রজেক্টের (গ্লোবাল) প্রেসিডেন্ট ওসা স্কোজস্ট্রোম ফেল্ট, ভারতের পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ড. সাঈদা হামিদ, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সম্মানিত ফেলো ড. রওনক জাহান, দ্য হাঙ্গার প্রজেক্টের গ্লোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট ও কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার প্রমুখ।

মানবাধিকার রক্ষায় অবদান রাখার জন্য বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতির (বেলা) নির্বাহি পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান এবং বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট) পরিচালক ব্যারিস্টার সারা হোসেনকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

সম্মেলনে ওসা স্কোজস্ট্রোম ফেল্ট বলেন, ‘আমরা নারীদের জন্য একটি বৈষম্যহীন সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে চাই। যদিও এটা কঠিন কাজ। কিন্তু আমাদের এটা করতে হবে। নারীদের জন্য শিক্ষা ও পুষ্টি নিশ্চিত করতে পারলে নারীরা আরো এগিয়ে যাবে।’

বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘বাংলাদেশের জন্য অভাবনীয় সাফল্য অপেক্ষা করছে। কারণ, বাংলাদেশের নারীরা আজ তাদের ও সমাজের অন্যান্যদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় জেগে উঠেছে। এভাবে সবাই যদি নিজ অবস্থান থেকে জেগে ওঠে এবং আমরা সবাই যদি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করি তাহলে একটি আত্মনির্ভরশীল ও আত্মমর্যাদাপূর্ণ বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব।’

ড. রওনক জাহান বলেন, ‘মেয়েদের সমস্যা শুধু মেয়েদের সমস্যা নয়। এটা সমাজেরও সমস্যা। তাই নারীদের এগিয়ে নিতে হলে পুরুষদের এগিয়ে আসতে হবে। নারী নির্যাতন সমস্যা শুধু বাংলাদেশের সমস্যা নয়। সারা বিশ্বের মেয়েদের একই সমস্যা। তাই সম্মিলিতভাবেই এ সমস্যা উত্তরণ করতে হবে।’

সাইদা হামিদ বলেন, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নের সঠিক পথেই আছে। আপনারা দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে যে গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো করছেন এজন্য আপনাদের অভিনন্দন। আমি আপনাদের অভিজ্ঞতা আমার নিজ দেশে গিয়ে বিভিন্ন সভায় বিনিময় করবো।’

ঢাকা, ১৭ নভেম্বর (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close