আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
শিল্প-সংস্কৃতি

তারেক মাসুদ উৎসব

tareqwmnওমেনআই: নন্দিত চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদের জন্মদিন আগামী ৬ ডিসেম্বর। এ উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠান সাজিয়েছে তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে ৬ ডিসেম্বর শনিবার বিকেল ৩টায় শুরু হবে দুই দিনব্যাপী তারেক মাসুদ উৎসব।

তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট সূত্রে জানা গেছে, উৎসবের আয়োজনে থাকছে তার নির্মিত চলচ্চিত্র ‘রানওয়ে’ এর নেপথ্য গল্প নিয়ে তথ্যচিত্রের প্রদর্শনী, তারেক মাসুদ নির্মিত প্রথম প্রামাণ্যচিত্র ‘আদম সুরত’ এর ডিভিডি’র মোড়ক উন্মোচন। এ ছাড়া তারেক মাসুদের লেখা গানের পরিবেশনা, তারেক মাসুদকে নিয়ে প্রামাণ্যচিত্রের প্রদর্শনী ও আলোচনা অনুষ্ঠান।

উৎসবের দ্বিতীয় দিন থাকছে তারেক মাসুদ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ও চলচ্চিত্রের প্রদর্শনী। উৎসবের অনুষ্ঠান প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ১০ পর্যন্ত চলবে।

তারেক মাসুদের জন্ম ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা থানায় ১৯৫৭ সালের ৬ ডিসেম্বর। বাল্যকালে তার শিক্ষাজীবন শুরু মাদ্রাসায়। পরবর্তী সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাসে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। বিশ্ববিদ্যালয় জীবন থেকেই তিনি বাংলাদেশের চলচ্চিত্র আন্দোলনের সাথে সক্রিয়ভাবে যুক্ত থেকেছেন এবং দেশে-বিদেশে চলচ্চিত্র বিষয়ক অসংখ্য কর্মশালা এবং কোর্সে অংশ নিয়েছেন।

১৯৮৫ সালের শেষ দিকে তথ্যচিত্র ‘আদম সুরত’ নির্মাণ করেন তারেক মাসুদ। এটি ছিল বাংলাদেশের প্রখ্যাত শিল্পী এসএম সুলতানের জীবন নিয়ে। এরপর তিনি বেশ কিছু তথ্যচিত্র ও চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। ১৯৯৫ সালে তারেক মাসুদ নির্মাণ করেন প্রামাণ্য চিত্র ‘মুক্তির গান’ ও ‘মুক্তির কথা’। মুক্তিযুদ্ধের হৃদয়স্পর্শী দৃশ্যসমৃদ্ধ এ দুটো প্রামাণ্যচিত্র দেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ছড়িয়ে দিতে অবিস্মরণীয় ভূমিকা পালন করে।

২০০২ সালে তারেক মাসুদ নির্মিত প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘মাটির ময়না’ মুক্তি পায়। এই চলচ্চিত্রটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয় এবং দেশে-বিদেশে ব্যাপক প্রশংসা অর্জন করে। ‘মাটির ময়না’ প্রথম বাংলাদেশী সিনেমা হিসেবে অস্কার প্রতিযোগিতায় বিদেশী ভাষার চলচ্চিত্র বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। এডিবনার্গ, মন্ট্রিল, কায়রো উৎসবেও ‘মাটির ময়না’ প্রদর্শিত হয়। পাশাপাশি ২০০২ সালে মারাকেশ আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা চিত্রনাট্যের পুরস্কার লাভ করে। ২০০৩ সালে করাচি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবেও সেরা ছবির পুরস্কার লাভ করে। ২০০৪ সালে ছবিটি ব্রিটেনের ডিরেক্টরস গিল্ড পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়।

তারেক মাসুদ নির্মিত দর্শক সমাদৃত আরেকটি ছবি হচ্ছে ‘অন্তর্যাত্রা’। এই ছবিটি তিনি নির্মাণ করেন ২০০৬ সালে। তারেক মাসুদ সর্বশেষ নির্মাণ করেন ‘রানওয়ে’ ছবিটি।

প্রস্ততি নিচ্ছিলেন নতুন ছবি ‘কাগজের ফুল’ নির্মাণের। বাংলাদেশের বিকল্প ধারার চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সংগঠন শর্ট ফিল্ম ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য তারেক মাসুদ। ১৯৮৮ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসবের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে কাজ করেন তিনি। এ ছাড়া তিনি যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ এবং এশিয়ার বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেওয়ার পাশাপাশি নিয়মিত চলচ্চিত্র বিষয়ে লেখালেখি করতেন।

তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথেরিন মাসুদ একজন মার্কিন নাগরিক। ক্যাথেরিন এবং তারেক মিলে ঢাকায় একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছিলেন, যার নাম ‘অডিওভিশন’। চলচ্চিত্র নির্মাণ ছাড়া তারেক মাসুদের আগ্রহের বিষয় ছিল লোকসংগীত। জীবনের শেষভাগে তিনি বাংলাদেশের সিনেমা হলগুলোর পুনর্জাগরণের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা শুরু করেছিলেন। জীবনঘনিষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্মাণ করে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রাঙ্গনে তারেক মাসুদ অনন্য ভূমিকা রেখেছিলেন।

২০১১ সালে ১৩ আগস্ট নতুন চলচ্চিত্র ‘কাগজের ফুল’-এর দৃশ্যধারণের স্থান নির্বাচন করতে মানিকগঞ্জে গিয়েছিলেন তারেক মাসুদ। ফেরার পথে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জের জোকায় বিপরীত দিক থেকে আসা বেপরোয়া গতির একটি বাসের সঙ্গে তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্রো চ-১৩-০৩০২) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তারেক মাসুদের পাশাপাশি চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীরসহ আরও তিনজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

ঢাকা, ০৪ ডিসেম্বর (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close