আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
আন্তর্জাতিক

এবার ৪ শিশুর শিরশ্ছেদ করেছে আইএস!

is wmnওমেনঅাই: ইরাকে চার খ্রিস্টান শিশুর শিরশ্ছেদ করেছে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ না করায় তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন এক ব্রিটিশ পুরোহিত। ক্যানন অ্যান্ড্রু হোয়াইট নামের ওই পুরোহিত ‘ভিকার অব বাগদাদ’ নামেই পরিচিত। সোমবার যুক্তরাজ্যের ‘দা ইনডিপেন্ডেন্ট’ পত্রিকায় এ খবর প্রকাশিত হয়েছে।

বাগদাদ গির্জার পুরোহিত ক্যানন হোয়াইট ‘অক্সফোর্ড ক্রিশ্চিয়ান নেটওয়ার্ক’কে জানিয়েছেন, সম্প্রতি বাগদাদের নিকটবর্তী খ্রিস্টান অধ্যুষিত ছিটমহলটি দখল করে নেয়ার পর ওই হত্যাকাণ্ড ঘটায় আইএস। তার ভাষায়, ‘ইরাককে খ্রিস্টান শূণ্য করতেই এই হত্যাযজ্ঞে নেমেছে জঙ্গিরা। তারা বিপুল পরিমাণ খ্রিস্টানদের হত্যা করেছে। তাদের শিশুদের কেটে টুকরো টুকরো করছে। তাদের মাথা কেটে নিচ্ছে। এরপর তারা ইরাকের আরো উত্তরে চলে যায়।’ তিনি এ ঘটনাকে ভয়াবহ বলে বর্ণনা করেছেন।

তিনি নেটওয়ার্ককে বলেছেন, জঙ্গিরা ওই ছিটমহলের এক খ্রিস্টান ব্যক্তিকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে বলে। নইলে তারা তার বাচ্চাদের হত্যা করবে বলে ভয় দেখায়। নিজের ছেলেমেয়ের প্রাণ বাঁচাতে তিনি কলেমা পড়ে ইসলাম গ্রহণ করেন। এ সম্পর্কে ‘ভিকার অব বাগদাদ’ আরো বলেছেন, “ওই ব্যক্তি পরে ফোনে আমাকে জানায়,‘ফাদার, আমি তো ওইসব শব্দ উচ্চারণ করেছি। তাহলে কি যীশু আমাকে আর ভালোবাসবেন না?’ উত্তরে আমি তাকে বলেছি,‘যীশু এখনো তোমাকে ভালবাসেন। তিনি সবসময় তোমাকে ভালোবাসবেন।”

ক্যানন হোয়াইট দাবি করেছেন, ওই ব্যক্তি ইসলাম গ্রহণ করলেও তার চার ছেলেমেয়ে কলেমা পড়তে অস্বীকার করেছিল। তারা বলেছিল,‘না, আমরা এসব বলবো না। আমরা যীশুকে ভালোবাসি এবং সারা জীবন তার অনুসারী হয়েই থাকতে চাই।’ তখন ওই চার খ্রিস্টান শিশুকে গলা কেটে হত্যা করে আইএস। নিহত শিশুদের বয়স ১৫ বছরের নিচে বলেও জানিয়েছেন ওই পাদ্রি।

ক্যানন হোয়াইট আরো জানিয়েছেন, জঙ্গিরা ওই খ্রিস্টানকেও হত্যার হুমকি দিয়েছিল। প্রাণ ভয়ে তিনি এখন ইসরায়েলে পালিয়ে যান এবং এখন তিনি সেখানেই বসবাস করছে

ঢাকা, ০৯ ডিসেম্বর (ওমেনঅাই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close