আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
নারী সংগঠন

রোকেয়া দিবসে ৬ জনকে সংবর্ধনা

joyeta wmnওমেনঅাই:আর্ন্তজাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধপক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০১৪ উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার সকালে ‘জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ’ কার্যক্রমের আওতায় নারায়ণগঞ্জের ৬ জন জয়িতাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

এর আগে ‘নীরবতা আর নয় আসুন নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সবাই রুখে দাড়াই’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও ব্র্যাকের উদ্যোগে শহরের চাষাঢ়াস্থ শহীদ জিয়া হল মিলনায়তনের সামনে একটি র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

পরে শহীদ জিয়া হল মিলনায়তনে অর্থনৈতিক সাফল্য অর্জন করায় মাহফুজা আক্তার, শিক্ষাক্ষেত্রে বিলকিছ বেগম, সফল জননী আনোয়ারা বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা ভুলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করা নাসিমা আক্তার, সমাজ উন্নয়নের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা আক্তার, শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে অ্যাডভোকেট নূরজাহান বেগমকে জয়িতা হিসেবে সংবর্ধণা প্রদান করা হয়।

জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের উদ্যোগে এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের উদ্যোগে সংবর্ধণা অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান হাবিবের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান মিঞা। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শাহীন আরা বেগম, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা গাউছুল আজম, সরকারি তোলারাম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও এনসিসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শিরীন বেগম, মুক্তিযোদ্ধা ফরিদা আক্তার, অ্যাডভোকেট নূরজাহান বেগম, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আইনুন নাহার প্রমুখ।

আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এনডিসি আবুল কাশেম মুহাম্মদ শাহীন, সদর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাজমীন আক্তার, জিএম জব্বার চিশতী, ব্র্যাকের জেলা প্রতিনিধি হাসান ওয়াইজ প্রমুখ।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা গাউছুল আজম বলেন, সদর উপজেলায় প্রতিষ্ঠিত কারুকুঞ্জের মাধ্যমে ৫০০ নারীকে স্বাবলম্বী করা হয়েছে। আজকে কারুকুঞ্জের একজন শিক্ষক মাহফুজা আক্তার জেলা পর্যায়ে পুরস্কৃত হয়ার পাশাপাশি বিভাগীয় পর্যায়ে মনোনীত হয়েছে।

এছাড়া জেলার যে ৫ জন জয়িতাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে তার মধ্যে ৩ জনই সদর উপজেলার আওতাধীন। এছাড়া নারী নির্যাতন ও ইভটিজিং প্রতিরোধে আমরা সবসময়ই তৎপর আছি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান মিঞা বলেন, নারীদের স্বাবলম্বী হতে যেকোন উদ্যোগে জেলা প্রশাসন পাশে আছে। জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে যে নারীরা স্বাবলম্বী হতে পারে তার অন্যতম উদাহারণ হচ্ছে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা গাউছুল আজমের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত কারুকুঞ্জ।

আজকে যারা জয়িতা হিসেবে সংবর্ধণা পেয়েছেন তাদের থেকে নবীনদের অনেক কিছু শেখার আছে। কারণ ভবিষ্যতে তারাই জয়িতা হবেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে তাদেরকেই অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।

ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর (ওমেনঅাই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close