আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
অর্থনীতি

বাণিজ্য মেলা: নারী উদ্যোক্তারাও স্টল পাচ্ছেন

DITFওমেনঅাই: ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার (ডিআইটিএফ) জোর প্রস্তুতি চলছে। মেলার স্টল বরাদ্দ প্রায় শেষ পর্যায়ে। আর এবারই প্রথমবারের মতো নারী উদ্যোক্তারা ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় স্টল বরাদ্দ পাচ্ছেন।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপকালে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আগের বছর মেলা দেরিতে শুরু হলেও এবার যথাসময়ে শুরু হবে। ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ লক্ষ্যে বাণিজ্য মেলার প্রস্তুতি দ্রুত গতিতে এগোচ্ছে।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো সূত্রে জানা গেছে, এবার ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় মোট ৫০৮ টি স্টল বরাদ্দ দেয়া হবে। এর মধ্যে সাধারণ স্টল দেয়া হবে ২২২টি। সাধারণ স্টলের বিপরীতে ৩৬৬ টি আবেদন জমা পড়েছে। লটারির মাধ্যমে এসব স্টল বরাদ্দ দেয়া হবে।

এছাড়া প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন দেয়া হবে ৫৪টি এবং মিনি প্যাভিলিয়ন দেয়া হবে ৫৪টি। এছাড়া থাকবে টি স্টল, রেস্তোরা। বিদেশিদের জন্য দেয়া হয়েছে ১৪টি স্টল ও প্যাভিলিয়ন।

বাণিজ্য মেলা সম্পর্কে যোগাযোগ করা হলে ডিআইটিএফ ২০১৫-এর সদস্য সচিব, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর উপ-পরিচালক (অর্থ) মোহাম্মদ রেজাউল করিম বাংলামেইলকে জানান, মেলার সব ধরনের প্রস্তুতি দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। মেলা প্রাঙ্গণে একটি প্রকল্প অফিস নেয়া হয়েছে। সেখানে কর্মকর্তারা মাঠের উন্নয়নে কাজ করছে। মেলা উদ্বোধনের আগেই সব ধরনের কাজ শেষ হবে।

তিনি আরো জানান, আগের বছরের মতো এবারও মেলার গেট হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলের মতো। ভবিষ্যতে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো নিজেদের মতো করে মেলার গেইট তৈরি করবে।

জানা গেছে, এবার প্রথম বারের মতো নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ২৯টি স্টল বরাদ্দের আদেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া উৎপাদক, রেডিমেট গার্মেন্টস, হোমটেক্স, ফেব্রিক্স পণ্যের ৪৯টি, হস্তশিল্পজাত, পাট ও পাটজাত, গৃহস্থালী ও উপহার সামগ্রীর ২৮টি, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের ২৬টি, ক্রোকারেজ, তৈজসপত্র, সিরামিক, পাস্টিক, পলিমার পণ্যের ২৫টি, কসমেটিকস হার্বাল ও প্রসাধন সামগ্রীর ২৫টি, খাদ্য ও খাদ্যজাত পণ্যের ৫টি, ইলেকট্রিক ও ইলেক্টনিক্স সামগ্রীর ১০টি, ইমিটেশন ও জুয়েলারি ১২টি, নির্মাণ সামগ্রী ও ফার্নিচারের জন্য ৪টি ও বিবিধ খাতে ৯টি স্টল বরাদ্দের কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে।

ডিআইডিএফের অনুকূলে বরাদ্দের অর্থ জমা দেয়ার পর এসব প্রতিষ্ঠানকে স্টল নম্বর দেয়া হবে। আর স্টল নম্বরও লটারির মাধ্যমে বরাদ্দ দেয়া হবে।

যোগাযোগ করা হলে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর সচিব ও মেলার পরিচালক ড. এ এফ এম মনজুর কাদির জানান, মেলার স্টল বরাদ্দ দেয়া প্রায় শেষ পর্যায়ে। দ্রুত গতিতে কাজ চলছে। এবারই নারী উদ্যেক্তাদের জন্য প্রথম বারের মতো স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এতে নারীরা উদ্যোক্তা হয়ত এগিয়ে আসবেন।

তিনি আরও জানান, এবার বিদেশি প্যাভিলিয়ন সংখ্যা আগের বছরের চেয়ে বেড়েছে। বিদেশিরা আরও প্যাভিলিয়ন নিতে আগ্রহী হলে তাদেরকে প্রয়োজনুযায়ী বরাদ্দ দেয়ায় সুযোগ রয়েছে বলে জানান তিনি।

ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর (ওমেনঅাই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close