আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
বিনোদন

‘নির্বাসিত’ ছবি ঘিরে আবেগাপ্লুত তসলিমা

churni wmnওমেনআই:তসলিমা নাসরিনের জীবনের ঘটনা অবলম্বনে তৈরি হয়েছে চূর্ণী গঙ্গোপাধ্যায়ের ছবি ‘নির্বাসিত’। মুক্তির আগেই ছবিকে ঘিরে নিজের দীর্ঘ প্রতিক্রিয়া জানালেন তসলিমা নাসরিন। নিজের ফেসবুক পেজে ‘নির্বাসিত’ মনের কথা উজাড় করে দিলেন তসলিমা।

কয়েকদিন আগে তাঁর একটি সিরিয়াল হওয়ার কথা ছিল। স্কাইপেতে সাংবাদিক সম্মেলনও করেছিলেন। যদিও সে সিরিয়াল সম্প্রচার করা সম্ভব হয়নি। অভি়যোগ করে তিনি লিখেছেন, ‘কিন্তু যেদিন শুরু হবে আমার মেগা সিরিয়াল, তার দুদিন আগে, বলা নেই কওয়া নেই, মমতা ব্যানার্জি পুলিশ পাঠিয়ে টিভি চ্যানেলকে হুমকি দিলেন, দুঃসহবাস দেখানো চলবে না। পঞ্চাশ এপিসোড সুটিং হয়ে গেছে, আর কিনা সিরিয়াল দেখানো চলবে না। আমার বেলায় ‘কেন চলবে না’ এর উত্তর সব সরকারের জিভের ডগায়, চলবে না কারণ মুসলিম মৌলবাদিরা ‘রায়ট’ লাগাবে, দাঙ্গা বাঁধাবে। আমার বই নিষিদ্ধ করার বেলায় মমতা ব্যানার্জির আগে যিনি মূখ্যমন্ত্রী ছিলেন পশ্চিমবঙ্গে, একই যুক্তি দিয়েছিলেন।’

এছাড়া ভারতের অন্যান্য অঞ্চলেও ছবির ব্যাপারে তাঁর একই অভিজ্ঞতা। লেখালিখির ক্ষেত্রও সবরকমের বিরোধিতার মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। অনেক সম্পাদক লেখা ছাপাতে চেয়েও সরকারের চোখরাঙানিতে ছাপাতে পারেননি।

তসলিমা জানিয়েছেন, তাঁর দেশ ছেড় যাওয়া নিয়ে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ই প্রথম কমেডি ছবি তৈরি করতে চেয়েছিলেন। যদিও শেষ অবধি কৌশিক তা বানিয়ে উঠতে পারেননি। পরে চূর্ণী নিজে আবার স্ক্রিপ্ট লেখেন। এবং শেষমেশ ছবি তৈরি হয়। যদিও ছবিতে তাঁর সরারসরি উল্লেখ করা হয়নি।

পরিচালককে বাহবা দিয়ে তসলিমা লিখেছেন, ‘ছবিটিকে চলতে হলে যদি আমার নাম গন্ধ কেটে বাদ দিতে হয়, হোক। ভেঙ্কটেস তো প্রযোজক হিসেবেও নিজেদের নাম দেয়নি। এসবে আমার কোনও আপত্তি নেই। ছবিতে আমার জীবন সংগ্রাম, আমার ওপর রাজনৈতিক অত্যাচার, আমার লেখালেখি, আমার আদর্শ বিশ্বাস, খুব স্পষ্ট করে দেখানো হয়নি, যা হয়েছে দেখানো তা হলো আমার সঙ্গে আমার বেড়ালের বিচ্ছেদ। মায়ের সঙ্গে কন্যার বিচ্ছেদ। বেড়াল আমাকে চাইছে, আমি বেড়ালকে চাইছি। চূর্ণী এভাবেই প্রতিবাদ করেছেন আমাকে দেশ থেকে, রাজ্য থেকে বিতাড়িত করে যে অন্যায় করা হয়েছে তার। এভাবেই তিনি প্রকাশ করেছেন মত প্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষে নিজের মত।’

তসলিমা জানিয়েছেন ভারতে মে মাস নাগাদ মুক্তি পাবে ছবিটি। হিট-ফ্লপের কথা তিনি ভাবছেন না। তবে চূর্ণী যে শেষ পর্যন্ত তাঁর প্রতিবাদ-লড়াই-সংগ্রামকে এরকম একটা জায়গা দিয়েছেন, তাতে তাঁকে ‘মহিয়ষী’ বলতে ইচ্ছে করে তসলিমার।

একদা তিনি লিখেছিলেন, আমি ভালো নেই, তুমি ভালো থেকো প্রিয় দেশ। এ লেখার প্রতি পরতে পরতে ধরা পড়েছে সেই বিষাদ। আর শেষে পৌঁছে সেই বিষাদ পেরিয়ে যেন একটু হলেও দেখা দিল মনভালোর আলো। এক ‘নির্বাসিত’ই হয়তো এভাবে ভালো করে দিতে পারে আর এক সত্যিকারের নির্বাসিতের মন।

ঢাকা, ০৮ জানুয়ারি (ওমেনআই)/এসএল/

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close