আমাদের নুতন ওয়েবসাইট www.womeneye24.com চালু হয়েছে। নুতন সাইট যাবার জন্য এখানে ক্লিক করুন
আন্তর্জাতিক

কোভিড-১৯ স্ত্রী নাকি পুরুষবাচক শব্দ?

অনলাইন ডেস্ক : ‘বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি চির-কল্যাণকর অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর’- এই লাইনটি বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘নারী’ কবিতার। যদি প্রবাদ হিসেবেও ধরে নেওয়া যায় প্রায় সবকিছুতেই নারী-পুরুষের একটি ভেদাভেদ থাকেই, যেমন- প্রাণীকূলে; কিংবা মানুষের তৈরি কিছুতে, যেমন- গোলাপী হলে নারীর রং, কালো বা নীল হলে পুরুষের। তেমনি নাকি রোগ-জীবাণুরও স্ত্রী এবং পুরুষবাচক শ্রেণি আছে। তাহলে বিশ্বব্যাপী দাপট দেখানো করোনাভাইরাস কোন বাচক?

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়লেও করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ কীভাবে ছড়াচ্ছে, আদৌ কোনো প্রাণীর শরীর থেকে এসেছে বা এ থেকে বেঁচে থাকার কী উপায়—তা নিয়ে বিস্তর গবেষণা করছেন বিশ্বব্যাপী নামী-দামি বিজ্ঞানীরা। এমনকি কোভিড-১৯ পুরুষবাচক নাকি স্ত্রীবাচক সেটি নিয়েও নাকি গবেষণা চলছে!

করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ কোন বাচক বা শ্রেণির তার সমাধান দিয়েছে ফ্রান্স। আদতে ফ্রান্সের অ্যাকাডেমি ফ্রান্সেইস। সংস্থাটি বলছে—কোভিড-১৯ স্ত্রীবাচক শব্দ! অবশ্য অনেক ক্ষেত্রে এটি সাধারণভাবে ব্যবহার হচ্ছে।

কেন করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ স্ত্রীবাচক শব্দ

অ্যাকাডেমি ফ্রান্সেইসের তথ্যমতে, ফরাসি ভাষায় ‘মালাডি প্রোভোকি পার লা করোনাভাইরাস’ মানে হলো করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট রোগ। ‘মালাডি’ স্ত্রীবাচক শব্দ। তাই যেহেতু করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯’ ক্ষেত্রে মালাডি বলা হচ্ছে; সেক্ষেত্রে অবশ্যই এটি একটি স্ত্রীবাচক শব্দ।

আরও কিছু উদাহরণ

ফরাসি ভাষায় ‘লা’ ও ‘লে’র মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য আছে। যার মূখ্য পার্থক্য প্রতীয়মান হয় স্ত্রী ‍ও পুরুষ ভেদে। কোনো শব্দের আগে ‘লা’ বসলে সেটি স্ত্রীবাচক আর লে বসলে সেটি পুরুষবাচক।

যেমন- যুক্তরাষ্ট্রের ‘সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স এজেন্সি’ (সিআইএ) ফরাসি ভাষায় স্ত্রীবাচক। কারণ ফ্রান্সে সেটি ‘লা সিআইএ’ উচ্চারিত হয়। আবার ‘ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন’ (এফবিআই) পুরুষবাচক শব্দ, কারণ এটি উচ্চারিত হয় ‘লে এফবিআই’।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close